গোলের পর শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার জিয়ানকার্লো লোপেজ রদ্রিগেজ
গোলের পর শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার জিয়ানকার্লো লোপেজ রদ্রিগেজছবি: প্রথম আলো

দীর্ঘদেহী হওয়াতে মাঠে আলাদা করে চেনা যায় জিয়ানকার্লো রদ্রিগেজকে। এবারের ঘরোয়া ফুটবলে সর্বোচ্চ উচ্চতার খেলোয়াড় বলা হচ্ছে শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের ব্রাজিলিয়ান এই স্ট্রাইকারকে। প্রায় ৬ ফুট ৪ ইঞ্চি লম্বা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আজ সে উচ্চতাকেই কাজে লাগালেন জিয়ানকার্লো। হেডে করা তাঁর একমাত্র গোলেই চট্টগ্রাম আবাহনীকে হারিয়েছে শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্র।

যেভাবে গোলটি করেছেন জিয়ানকার্লো, তাঁর জায়গায় অন্য কেউ হলে গোলটি করতে পারতেন কি না, সন্দেহ আছে! ম্যাচের ৪৩ মিনিটে মাঝমাঠের ওপর থেকে সিওভুশ আশরোরভের নেওয়া ফ্রি–কিকে বক্সের মধ্যে লাফিয়ে উঠে হেডে গোলটি করেছেন ৩১ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার।

এই চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষেই ফেডারেশন কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পেনাল্টি মিস করেছিলেন জিয়ানকার্লো। তাঁর দলও ম্যাচটি হেরেছিল ২–০ গোলে। আজ গোল করার জিদ নিয়েই মাঠে নেমেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচ শেষে প্রথম আলোকে বলেন, ‘এই দলের সঙ্গে আমি আগের ম্যাচে পেনাল্টি মিস করেছি। আজ গোল করার জিদ নিয়েই মাঠে নেমেছিলাম। সফল হয়েছি। ভালো ফ্রি–কিক ছিল। সেটিকে ভালোভাবে কাজে লাগাতে পেরেছি।’

লিগে এটি তাঁর দ্বিতীয় গোল। এবারের লিগে এখন পর্যন্ত অপরাজেয় সাইফুল বারীর শেখ রাসেল। ৪ ম্যাচে তিন জয় ও এক ড্র। সর্বশেষ দুই ম্যাচে টানা জয়ের টাটকা অনুপ্রেরণা নিয়ে আজ শেখ রাসেলের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল মারুফুলের আবাহনী। দেশের অনত্যম সেরা দুই কোচের লড়াইয়ে শেষ হাসি সাইফুলের।

default-image

শেখ রাসেলকে জিতিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। অন্যদিকে আজ ‘অফ মুডে’ ছিলেন চট্টগ্রামের ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার নিক্সন গিয়াহামে। দ্বিতীয়ার্ধে তাঁকে মাঠ থেকেই তুলে নিতে বাধ্য হন মারুফুল। দ্বিতীয়ার্ধে প্রায় একচেটিয়া খেলেও ম্যাচে ফিরতে পারেনি চট্টগ্রামের ক্লাবটি। গোল মিসের খেসারত দিতে হয়েছে তাদের। সঙ্গে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল ক্রসবার।

আজ পুরো ম্যাচে দারুণ খেলেছে চট্টগ্রামের রাইট ব্যাক নাসিরুল ইসলাম। ওভার ল্যাপিংয়ে উঠে দুবার গোল করার সুযোগ তৈরি করেছিলেন। ৩৩ মিনিটে মিডফিল্ডার চার্লস দিদিয়েরের সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান বক্সে ঢুকেছিলেন জাতীয় দলের সাবেক হয়ে যাওয়া রাইটব্যাক নাসিরুল।

পোস্ট ছেড়ে বের হয়ে আসা গোলরক্ষক আশরাফুল রানার মাথার ওপর দিয়ে প্লেসিং করেছিলেন। কিন্তু সেটি অল্পের জন্য ক্রসবার উঁচিয়ে বাইরে।

এর ১০ মিনিট পরেই এসেছে ম্যাচের মীমাংসা করে দেওয়া লোপেজের দুর্দান্ত গোলটি। তবু সমতায় ফিরে বিরতিতে ড্রেসিংরুমে যেতে পারত মারুফুলের দল। কিন্তু নিক্সনের ক্রসে দিদিয়েরের সাইড ভলি পোস্টে লাগে।

প্রথমার্ধে লেগেছে সাইড পোস্টে আর দ্বিতীয়ার্ধে চট্টগ্রামের বাধা ক্রসবার। ৫৩ মিনিটে ডান প্রান্ত দিয়ে ভেতরের দিকে প্রবেশ করে বক্সের ওপর থেকে রাকিব হোসেনের নেওয়া দুর্দান্ত শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে।

default-image

অবশ্য পরের মিনিটেই ক্রসবার দুর্ভাগ্য বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে শেখ রাসেলেরও। নাইজেরিয়ান মিডফিল্ডার ওবি মোনেকের শট ফিরে আসে ক্রসবারে লেগে।

কিন্তু ৭৩ মিনিটে চট্টগ্রামের চিনেদু ম্যাথু যে গোল মিস করেছেন, এরপরে আর ম্যাচে ফেরার আশা না করাই ভালো! ফাঁকা পোস্টে বল রাখতে পারেননি নাইজেরিয়ান এই ফরোয়ার্ড। গোলমুখ থেকে নেওয়া তাঁর শট ক্রসবারের অনেক ওপর দিয়ে বাইরে ।

শেষ পর্যন্ত প্রতিরোধ গড়ে লিগে তৃতীয় জয় তুলে নেয় শেখ রাসেল। এই জয়ে ৪ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট তাদের। সমান ম্যাচে ৬ পয়েন্ট চট্টগ্রাম আবাহনীর।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন