>বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাই পর্বের ম্যাচে গতকাল ভারতের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছে বাংলাদেশ। গতকাল শেষ মুহূর্তে জয় বঞ্চিত হলেও ফিরতি পর্বের ম্যাচে বাংলাদেশে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী বাংলাদেশের গোলদাতা সাদউদ্দিন।
default-image

জাতীয় দলের জার্সিতে গতকালই প্রথম গোল করেছেন সাদউদ্দিন। তাও আবার ভারতের বিপক্ষে কলকাতার যুব ভারতী স্টেডিয়ামে গ্যালারি ভর্তি দর্শকের সামনে। যদিও শেষ মুহূর্তের গোলে হৃদয় ভঙ্গ হয়েছে বাংলাদেশের। তবে আজ সকালে টিম হোটেলে বেশ খোশমেজাজেই পাওয়া গেল এই তরুণকে। গতকাল হয়নি , ভবিষ্যতে হবে— এই বিশ্বাস নিয়েই আজ নতুন সকাল শুরু করেছেন তিনি। আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলেই দিলেন , বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্বের ম্যাচে বাংলাদেশের মাঠে ভারতকে ঠিকই হারিয়ে দেব।

গতকাল ৩৪ বছর পর কলকাতায় মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ ও ভারত। আর ভারতই কলকাতায় খেলেতে এসেছে প্রায় ৮ বছর পর। তাই বোধ হয় উন্মাদনা, উচ্ছ্বাস ও আবেগের তুমুল ঝড় তুলে ৩ পয়েন্টের আশায় মাছে এসেছিল কলকাতার সমর্থকেরা। কিন্তু সেই উৎসবকে প্রথমার্ধের ৪২ মিনিটেই মাটি করে দিয়েছিলেন সাদ । এক হেডেই স্তব্ধ করে দিয়েছিলেন যুব ভারতীর ৬১ হাজার দর্শককে।

কাতারের বিপক্ষে দুর্দান্ত ম্যাচ খেলার স্মৃতি নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিলেন ভারতীয় গোলরক্ষক গুরপ্রীত সিং। সেই গুরপ্রীতই কাল বাংলাদেশের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ও ফরোয়ার্ড সাদউদ্দিনে নাকাল। ৪২ মিনিটে জামালের দুর্দান্ত এক ফ্রি কিক গুরপ্রীত ফ্লাইট মিস করায় সেই বল গিয়ে পড়ে সাদউদ্দিনের মাথায়। সাদ তাঁর জীবনের সেরা হেডটি নিলেন। গোল! এই গোলেই ভারতকে গতকাল ভারতের মাটিতে হারিয়ে দেওয়ার স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। ৮৮ মিনিটে ডিফেন্ডার আদিল খানের কাছে হার মানতে হলো। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের বহুল আলোচিত দুই প্রতিবেশীর ম্যাচ শেষ পর্যন্ত ১-১। জয় পেলে সেটি হতো অসাধারণ এক অর্জন।

তবে কলকাতায় যেটি আসেনি সেটি ফিরতি পর্বে বাংলাদেশ পাওয়া সম্ভব বলে মনে করেন সাদ ,‘ ওদের নিজেদের মাঠেই তো হারিয়ে দিয়েছিলাম প্রায়। শেষের দিকে গোল খাওয়া দুর্ভাগ্য। তবে বাংলাদেশের ম্যাচে ঠিকই হারিয়ে দিতে পারব।এখন আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়ে গিয়েছে। ’ ভারতের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী বছর ৪ জুন।

জাতীয় দলের জার্সিতে গতকালই প্রথম গোল পেয়েছেন গত বছর ঢাকায় অনুষ্ঠিত সাফ ফুটবলে ভুটানের বিপক্ষে অভিষিক্ত হওয়া সাদ। গোলটি ভারতের বিপক্ষে পাওয়ায় তাঁর উচ্ছ্বাসটা দ্বিগুণ , ‘ স্বপ্নের মতো একটি ম্যাচ খেললাম। জাতীয় দলে প্রথম গোল । তাও আবার ভারতের বিপক্ষে। স্বাভাবিকভাবে ভারতের শক্তিশালী দলের বিপক্ষে গোলের আনন্দও বেশি। তবে জিততে পারলে বেশি ভালো লাগত।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0