বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মেয়েদের র‍্যাঙ্কিং রাউন্ডে ২৬ জনের মধ্যে দিয়া হয়েছেন ১২তম। ৬৮৭ স্কোর করে র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে আছেন দক্ষিণ কোরিয়ার রিও সু জাং। আগামীকাল এলিমিনেশন রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে দিয়া মুখোমুখি হবেন কাজাখস্তানের আবদারাজাক আরুঝানের বিপক্ষে। দিয়ার পরই বাংলাদেশের হয়ে ভালো স্কোর করেছেন নাসরিন আক্তার।

৬২৯ স্কোর করে নাসরিন আক্তার হয়েছেন ১৫তম। ৬২১ স্কোর করে বিউটি রায় হয়েছেন ১৭তম, ৫৯৯ স্কোর করে ২৩তম শ্রাবণী আক্তার।

আমার আশা ছিল, আজ আরও ভালো স্কোর হবে।
নিজের সেরা স্কোর করেও হতাশ দিয়া সিদ্দিকী

প্রথম রাউন্ডে নাসরিন খেলবেন উজবেকিস্তানের মুনিরা নুরামানোভার বিপক্ষে, বিউটি খেলবেন কাজাখস্তানের ফরিদা তুকবায়েভার বিপক্ষে, শ্রাবণী খেলবেন ভিয়েতনামের নি থান থি এনগুয়েনের বিপক্ষে।

ছেলেদের কম্পাউন্ড ইভেন্টের র‍্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে ভালো ফল করেছেন রাকিব নেওয়াজ আহমেদ। ৩৪ জনের মধ্যে নবম হয়েছেন নেওয়াজ। তিনি করেছেন সর্বোচ্চ ৭০০ পয়েন্ট স্কোর। মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান হয়েছেন ১১তম। তিনি স্কোর করেন ৬৯৯। সোহেল রানা ৬৯৮ স্কোর করে হয়েছেন ১৪তম।

default-image

কম্পাউন্ডে দেশের সেরা আর্চার অসীম কুমার দাসের পারফরম্যান্স বেশ বাজেই হয়েছে। তিনি ৬৯০ স্কোর করে হয়েছেন ২১তম। এই বিভাগে র‍্যাঙ্কিং সেরা হয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার চোই ইয়ংহি। তিনি ৭২০ স্কোরের মধ্যে পেয়েছেন ৭১৬ পয়েন্ট!

মেয়েদের রিকার্ভে নিজের সেরা স্কোর করেও অবশ্য খুশি নন দিয়া, ‘আমার আশা ছিল, আজ আরও ভালো স্কোর হবে। প্রথম দফায় তির ছুড়ে আমি ৩২৮ মেরেছিলাম। কিন্তু পরেরবার ৩০৯ মেরেছি। এ জন্যই স্কোরে আরও পিছিয়ে পড়ি। তবে প্রতিটি গেমে যে আমার স্কোরে উন্নতি হচ্ছে, এতে আমার আত্মবিশ্বাসও বাড়ছে। আরও ছন্দে খেলতে পারছি স্কোর বাড়ানোর জন্য।’

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন