আজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে একটি পোস্ট করেন ২০১৭ সালে র‌্যাঙ্কিংয়ে তিনে উঠে আসা সভিতোলিনা, ‘আমি পারছি না...।’

এই পোস্টের সঙ্গে কান্না এবং হৃদয়ভঙ্গের কয়েকটি ইমোও জুড়ে দেন সভিতোলিনা। ইনস্টাগ্রামেও একটি পোস্ট করেন তিনি, ‘আমি একজন গর্বিত ইউক্রেনিয়ান। রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ ও শান্তির জন্য আমরা এই ক্রান্তিকালে একতাবদ্ধ হয়েছি। ইউক্রেন গৌরবান্বিত হোক।’

এই পোস্টের সঙ্গে ইউক্রেনের ভূ-প্রকৃতি নিয়ে একটি ভিডিও জুড়ে দেন সভিতোলিনা। সেখানে লেখা, ‘ইউক্রেনে যুদ্ধ নয়। দেশটা ইউক্রেনিয়ানদের।’ টেনিস কিংবদন্তি মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা এর আগে সভিতোলিনাকে নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে টুইট করেন, ‘ভাবতেও পারছি না, এলিনা সভিতোলিনা কী ভয়ংকর সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে...ইউক্রেনের জন্য প্রার্থনা।’

ইউক্রেনের কিংবদন্তি ফুটবলার এবং ব্যালন ডি’অরজয়ী আন্দ্রে শেভচেঙ্কোও এই হামলায় শঙ্কিত। গত মাসে জেনোয়ার কোচ পদ থেকে ছাঁটাই হওয়া শেভা এর আগে রাজনীতিতেও জড়িয়ে পড়েছিলেন।

ইউক্রেনের নাগরিকদের একতাবদ্ধ করতে আজ শেভার টুইট, ‘ইউক্রেন আমার মাতৃভূমি! আমার দেশ এবং দেশের জনগণ নিয়ে আমি গর্বিত। আমরা অনেক কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে গেছি এবং গত ৩০ বছরে আমরা একটা জাতি হয়ে উঠেছি। আমরা আন্তরিক, পরিশ্রমী এবং স্বাধীনতাপ্রেমী জাতি। এটাই আমাদের সবচেয়ে বড় সম্পদ।’

ম্যানচেস্টার সিটির ফুটবলার এবং ইউক্রেন জাতীয় দলের অধিনায়ক ওলেক্সান্দার জিনচেঙ্কো হামলার আগেই ইনস্টাগ্রামে বলেছিলেন, ‘আমার দেশটা ইউক্রেনিয়ানদের এবং কেউ তা কেড়ে নিতে পারবে না। আমরাও ছাড় দেব না। সভ্য বিশ্ব আমার দেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্বন্ধে জানে, এই দেশে আমি জন্মেছি, বেড়ে উঠেছি এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের জার্সির প্রতিনিধিত্ব করি। এই দেশটাকে আমরা গৌরবান্বিত করার চেষ্টা করছি। সীমান্তটা তাই অবশ্যই অক্ষত রাখতে হবে।’

রাশিয়ার স্থানীয় সময় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টার কিছু আগে টেলিভিশন ভাষণে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন