কোবি ব্রায়ান্ট।
কোবি ব্রায়ান্ট।ফাইল ছবি: রয়টার্স

কোবি ব্রায়ান্টের মর্মান্তিক সেই মৃত্যুর রেশ কাটিয়ে উঠতে পারেননি তাঁর ভক্তরা। যুক্তরাষ্ট্রের বাস্কেটবল কোর্ট থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এখনো ‘দ্য ব্ল্যাক মাম্বা’কে স্মরণ করা হয় নানাভাবে। এর মধ্যে লস অ্যাঞ্জেলেস পুলিশের বিরুদ্ধে বেশ শক্ত এক অভিযোগ তুললেন ব্রায়ান্টের স্ত্রী ভ্যানেসা ব্রায়ান্ট। সেখানকার কাউন্টি শেরিফের (পুলিশ প্রধান) চার সহকারী ব্রায়ান্টের সেই হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার বীভৎস সব ছবি প্রকাশ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভ্যানেসা। ইনস্টাগ্রামে ধারাবাহিক পোস্টের মাধ্যমে এই চার সহকারীর নামও প্রকাশ করেছেন তিনি।

বাস্কেটবল কিংবদন্তি ব্রায়ান্ট গত বছরের জানুয়ারিতে ক্যালিফোর্নিয়ার ক্যালাবাসেসে পাহাড়ি অঞ্চলে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মারা যান। এ সময় সঙ্গে থাকা তাঁর মেয়ে জিয়ানা মারি অনোরে ব্রায়ান্টও মারা যান। এ ছাড়া আরও সাতজন মারা যান মর্মান্তিক সেই দুর্ঘটনায়। ভ্যানেসার অভিযোগ, দুর্ঘটনাস্থলের বীভৎস সব ছবি প্রকাশ করেছেন সেই চার পুলিশ সদস্য। এ নিয়ে মামলাও করেছেন তিনি। সেখান থেকে তথ্য-প্রমাণ নিয়ে পেশ করে ভ্যানেসা জানিয়েছেন, শেরিফের সহকারীরা কীভাবে ছবিগুলো প্রকাশ করেন। ক্যালিফোর্নিয়ার নরওয়াকের এক পানশালায় ছবিগুলো দেখানোর অভিযোগ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
default-image

স্কাই নিউজ জানিয়েছে, ভ্যানেসা যে চার সহকারীর নাম প্রকাশ করেছেন, তাঁরা হলেন জোয়ে ক্রুজ, রাফায়েল মেজিয়া, মিকায়েল রাসেল ও রাউল ভেরাসালেস। দুর্ঘটনাস্থলে ব্রায়ান্টের মৃতদেহ পানশালার এক কর্মীকে দেখিয়েছেন ক্রুজ, মামলায় এ অভিযোগ করেন ভ্যানেসা এবং বাকিরা ‘কোনো কারণ ছাড়াই মৃত শিশু, মা–বাবা ও কোচদের ছবি প্রকাশ করেছেন।’ মামলায় বলা হয়, এই চার কর্মকর্তা ব্রায়ান্টের দুর্ঘটনার তদন্তের দায়িত্বের বাইরে ছিলেন। এসব ছবি প্রকাশের কোনো আইনসংগত অধিকারও তাঁদের নেই।
মামলার অভিযোগনামায় বলা হয়, ‘ব্রায়ান্টের দেহাবশেষের ছবি পানশালার এক কর্মী এবং রেস্তোরাঁর এক কর্মীকে দেখান ক্রুজ। পানশালার নিরাপত্তা ক্যামেরায় জুম ইন ও আউট করে দেখা গেছে ছবিগুলো তিনি দেখাচ্ছিলেন। এর মধ্যে একটি ছবি ছিল মেয়ের মৃতদেহ আর অন্য একটি ছবি দেখিয়ে ক্রুজ বলেন, এটি ব্রায়ান্টের দেহাবশেষ। ছবিগুলো দেখে সেই কর্মী কিছুক্ষণ পর চিৎকার করে বলে ওঠেন, তিনি ব্রায়ান্টের দেহাবশেষের ছবি দেখেছেন এবং দেখতে কেমন তার বর্ণনাও দেন।’

default-image

মামলায় অভিযোগ করা হয়, একই দিন ক্রুজ এসব ছবি নাকি তাঁর ভাতিজিকেও দেখিয়েছেন। তবে সেই পানশালার এক খদ্দের ব্রায়ান্টের দেহাবশেষের ছবিগুলো স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেননি। তাঁর কাছে ‘ছবিগুলো ভীষণ অস্বস্তিকর’ লেগেছে এবং শেরিফের অফিসে তিনি এ নিয়ে অভিযোগ করে ই–মেইলও করেছিলেন। আরেক সহকারী রাসেল তাঁর এক বন্ধুকে ছবিগুলো দেখান, যার সঙ্গে তিনি ‘ভিডিও গেম খেলে থাকেন’।

নাম প্রকাশ করা নিয়ে গত মাসে আদালতে এক শুনানিতে জয়ের পর নামগুলো প্রকাশ করলেন ভ্যানেসা। সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টি অফিসের আইনজীবীরা চেয়েছিলেন নামগুলো গোপন থাকুক। গত মাসে নামগুলো প্রকাশের জন্য শেরিফের অফিসে আবেদন করেছিলেন ভ্যানেসা। শুধু লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টি শেরিফের বিভাগ নয়, কাউন্টি অগ্নিনির্বাপক বিভাগ এবং কাউন্টি লস অ্যাঞ্জেলেস অফিসের বিরুদ্ধেও মামলা করেছেন ভ্যানেসা। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘন এবং অবহেলার অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন