default-image

দুই টুর্নামেন্টের জন্য ১৮ জনের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন। দেশের অপেক্ষমাণ থাকবেন মিডফিল্ডার আল নাহিয়ান ও ফরোয়ার্ড দীন ইসলাম। দুই টুর্নামেন্টে একই দল খেললেও অধিনায়ক থাকছেন দুজন। বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে সবাইকে অধিনায়কত্ব দিচ্ছে। গত মাসে জাকার্তায় এশিয়ান হকি ফেডারেশন কাপে জাতীয় দলের অধিনায়ক ছিলেন মিডফিল্ডার সারোয়ার হোসেন। এশিয়া কাপে অধিনায়ক থাকবেন ডিফেন্ডার খোরশেদুর রহমান। তার আগে এশিয়ান গেমসের বাছাইয়ে অধিনায়ক ডিফেন্ডার রেজাউল করিম।

ফুটবল ও হকির মতো খেলায় অধিনায়কের বড় কোনো ভূমিকা থাকে না ঠিক। তারপরও একটা বাড়তি দায়িত্ব থাকে অধিনায়কের ওপর। জাতীয় দলের অধিনায়ক হওয়া যেকোনো খেলোয়াড়ের কাছেই বিশেষ কিছু। রেজাউল করিমও ব্যতিক্রম নন। আট বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব পাওয়া তাঁর জন্য বড় আনন্দেরও। তবে রেজাউল ভুলে যাচ্ছেন না নিজের দায়িত্বের কথা, ‘অধিনায়ক হওয়া মানে আমার দায়িত্ব বেড়ে গেল। খেলোয়াড় হিসেবে নিজের সেরাটা দেব মাঠে। দলটাকে ভালোভাবে নেতৃত্ব দিতে চেষ্টা করব।’

default-image

২০১৮ সালে জাকার্তায় সর্বশেষ এশিয়ান গেমসের আগে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়েছিলেন রেজাউল। জাতীয় দলের আরেক খেলোয়াড় নাইমের সঙ্গে একই মোটরসাইকেলে ছিলেন। দুর্ঘটনা ঘটে ঢাকায় সচিবালয়ের সামনে। রেজাউল নিজেই চালাচ্ছিলেন মোটরসাইকেল। পায়ের একটি আঙুল ভেঙে গিয়েছিল তাঁর। ফলে সেই দলে ছিলেন না রেজাউল। সেই খারাপ সময় কাটিয়ে আবার দলে ফিরে এখন অধিনায়ক, এর চেয়ে বেশি কিছু চাইতে পারতেন না রেজাউল।

সে কথাই আজ তিনি প্রথম আলোকে বললেন। ফোনের অন্য প্রান্তে তাঁকে রোমাঞ্চিত মনে হলো, ‌‘জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব পাব ভাবিনি। এটা আমার কাছে চমক হয়েই এসেছে। বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনকে ধন্যবাদ যে তারা আমার ওপর আস্থা রেখেছে। আমি ভীষণ খুশি। আমার পরিবার, বন্ধু মহল সবাই খুব খুশি।’

রেজাউলের বাড়ি সাভারে বিকেএসপির পাশেই জিরানীতে। বলা যায় তাঁর বাড়ির উঠোনেই বিকেএসপি। ঘটনাক্রমে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি হন ২০০৮ সালে। বেরিয়ে আসেন ২০১৪ সালে এবং ওই বছর থেকেই আছেন জাতীয় দলে। তবে পেছনে তাকালে বিকেএসপির দিনগুলো তাঁকে আপ্লুত করে। মনে পড়ে তাঁকে প্রথম হকি স্টিক দিয়েছিলেন বিকেএসপির সেই সময়ের হকি কোচ জাহিদ হোসেন।

default-image

সেই জাহিদ হোসেন এখন বিকেএসপির প্রধান হকি কোচ। প্রিয় শিষ্য সম্পর্কে আজ ফোনে প্রথম আলোকে জাহিদ হোসেন বলেন, ‘ওর ধৈর্য বেশি। সবার সঙ্গে মিশতে পারে। হাসিখুশি থাকে, বিরক্ত হয় না। খেলার প্রতি ওর আগ্রহ অনেক বেশি। দলের অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারে।’

রেজাউলের আরেকটা গুণের কথাও বলেন জাহিদ হোসেন, ‘বিদেশি কোচ যে টিপসগুলো দেয় সেগুলো ও দ্রুত ভালোভাবে বুঝে নিতে পারে। জুনিয়রদের ভালোভাবে বোঝাতে পারে কোচের কথা। যেমন ভিডিও সেশনে জুনিয়ররা কিছু না বুঝলে বাবু (রেজাউল করিম) বুঝিয়ে দেয়। আমার বিশ্বাস ও অধিনায়ক হিসেবে ভালো করবে।’
বাংলাদেশের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার এখন রেজাউল। খেলেন সেন্ট্রাল ডিফেন্সে। কিন্তু কখনো প্রচারের আলোয় ছিলেন না। ভালো খেললেও আড়ালেই থেকে গেছেন। এবার অধিনায়ক হয়ে নিজেকে প্রচারে আনতে পারবেন, তাঁর আশা।

default-image

অধিনায়ক হিসেবে নিজের প্রথম টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারেও রেজাউল আত্মবিশ্বাসী, ‘যে দলগুলোর সঙ্গে আমরা মার্চে এশিয়ান হকি ফেডারেশন কাপে খেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি, সেই দলগুলোর সঙ্গেই খেলব। টুর্নামেন্টটা আমাদের জন্য আশা করি কঠিন হবে না। বর্তমান দলটা নিয়ে আমি আশাবাদী। সিনিয়র জুনিয়রের মিশ্রণ আছে। মিমু, জিমি ভাই আছেন। নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে চ্যাম্পিয়ন হব আশা করি।’

এশিয়ান গেমসের বাছাইয়ে প্রতিপক্ষ দলগুলোর মধ্যে শুধু ওমানই বাংলাদেশের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী। তবে ওমানকে গত মাসে এশিয়ান হকি ফেডারেশন কাপে গ্রুপ পর্ব এবং ফাইনালে দুবার হারায় বাংলাদেশ। ফলে বাংলাদেশের জন্য কঠিন হওয়ার কথা নয় এশিয়ান গেমসের বাছাই।

তবে কার্যকর প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে না পারার অতৃপ্তি আছে রেজাউলের, ‘বিকেএসপির সঙ্গে কয়েকটি ম্যাচ আমরা খেলেছি। তবে দেশের বাইরে গিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে পারলে ভালো হতো। অপরিচিত টিমের সঙ্গে খেললে ভুলগুলো ধরা পড়ে।’

ব্যাংককে এখন তাপমাত্রা ৩৭-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা গরমে অভ্যস্ত হলেও অতিরিক্ত গরম নিয়ে অধিনায়কের মনে একটু দুর্ভাবনা রয়ে গেছে। এটি যে তাঁর প্রথম ব্যাংকক সফরও।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন