বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জাতীয় খেলার সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন অপু বিশ্বাস। তারপর জানান, এই খেলাটির প্রচার ও প্রসারে ভূমিকা রাখতে চান। স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখতে দেখতে প্রথম আলোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি ফিরে যান নিজের ছোটবেলায়, যখন খেলাধুলার প্রতি বাড়তি একটা আগ্রহ ছিল তাঁর।

সেই আগ্রহটা এখনো ধরে রেখেছেন জানিয়ে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘আমরা জানি ১৯৭৪ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কাবাডি খেলাকে জাতীয় খেলা হিসেবে নির্বাচিত করেন। এটা জানার পর আমার খুবই ভালো লেগেছে এবং খেলাটির প্রতি আমার ভালোবাসা আরও বেড়েছে।’

default-image

অপু বিশ্বাস যোগ করেন, ‌‘খেলাটির নাম কাবাডি, যা সুন্দর একটি নাম। আর সেই কাবাডি ফেডারেশনের সদস্য আমি। এটা ভাবতেই ভালো লাগছে।’

বাংলাদেশ আজ বিশ্ব মঞ্চে নানাভাবে এগিয়ে চলেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই কোভিড পরিস্থিতিতেও আমরা এগিয়ে চলেছি। যা দেশের জন্য খুবই ভালো। পাশাপাশি বলব, একজন নারী হিসেবে নারীদের বিভিন্ন বিষয়ে আমার অনেক আগ্রহ আছে। সবকিছু মিলিয়েই কাবাডির সঙ্গে যুক্ত হয়েছি।’

পেশার বাইরে এতদিন অন্য কিছুতে সময় দিতে পারেননি। তবে এখন কাবাডির জন্য সময় দেবেন জানিয়ে অপু বিশ্বাস বলেন, ‘বাংলাদেশকেন্দ্রিক যেসব বিষয় আছে, এসবের প্রতি আমার সমর্থন বরবারই ছিল। এখন তা আরও বেড়েছে। কাবাডির সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। প্রথমার কাবাডি স্টেডিয়ামে এসে সবকিছুই ভীষণ উপভোগ করছি। খেলাটির উন্নয়নে আমি কাজ করতে চাই।’

default-image

প্রিয় খেলা কী জানতে চাইলে অপু হেসে বলেন, ‘আমি এখন কাবাডি ফেডারেশনে যুক্ত। অবশ্যই এই খেলাটি এখন আমার কাছে বেশি প্রিয়।’ বাংলাদেশে তাঁর প্রিয় খেলোয়াড় কে সেটিও জানান এক প্রশ্নে। উচ্চারণ করেন মাশরাফি বিন মুর্তজার নাম। হেসে বলেন, ‘মাশরাফি আমার প্রিয় খেলোয়াড়।’ পরক্ষণেই জানান, ‌‘একজন মানুষ হিসেবে তাঁকে আমি সবচেয়ে বেশি পছন্দ করি।’

টি২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলা দেখে হতাশ নন অপু বিশ্বাস। আগামীতে ভালো কিছু হবে এমন আশাই রাখলেন ঢাকাই সিনেমার দর্শকপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন