বিজ্ঞাপন
default-image

আগামীকাল থেকে সুইজারল্যান্ডের লুজান শহরে শুরু হবে আর্চারি বিশ্বকাপ।
৩৫ দেশের ২৩৫ জন তিরন্দাজ অংশ নেবেন এবারের বিশ্বকাপে। যেখানে রোমানদের লড়তে হবে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ইতালি, রাশিয়ার সেরা তিরন্দাজদের সঙ্গে। এই টুর্নামেন্ট শুরুর আগে আন্তর্জাতিক আর্চারি ফেডারেশন বেছে নিয়েছে পাঁচ তিরন্দাজকে, যাঁরা এবারের বিশ্বকাপে আলাদাভাবে নজর কাড়তে পারেন। বিশ্ব আর্চারি ফেডারেশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের বেছে নেওয়া তিরন্দাজদের তালিকায় সবার ওপরেই আছেন বাংলাদেশের রোমান।

রোমানের সঙ্গে এই তালিকায় দুইয়ে আছেন এস্তোনিয়ার মেয়েদের কম্পাউন্ড ইভেন্টের তিরন্দাজ লিজেল জাতমা। তিনে যুক্তরাজ্যের জেসিকা স্ট্রেটন। তিনিও মেয়েদের কম্পাউন্ড ইভেন্টে লড়বেন। চারে ইরানের জাহরা নেমাতি ও পাঁচে আছেন ইতালির নেসপোলি।

বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের বর্তমানে তিনে আছেন নেসপোলি। র‌্যাঙ্কিংয়ের নবম স্থানে রোমান। রিকার্ভের অন্যতম সেরা তিরন্দাজ নেসপোলি জিতেছেন ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা। সেই নেসপোলিকে হারিয়েছেন রোমান। সেই কারণেই কিনা ২৫ বছর বয়সী রোমানকে সম্ভাব্য পদকজয়ীদের তালিকায় বেছে নিয়েছে বিশ্ব আর্চারি ফেডারেশন। ওয়েবসাইটটি লিখেছে, বিশ্বকাপটা হতে পারে রোমানের জন্য বড় পরীক্ষার মঞ্চ। এখানেই তাকে প্রমাণ করতে হবে আসলেই নেদারল্যান্ডসে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে পদক জেতাটা কোনো অঘটন ছিল না। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ধারাবাহিক সাফল্য পেতেই যে এসেছেন রোমান, সেটা জানিয়ে দেওয়ার আরেকটা প্ল্যাটফর্ম হতে পারে সুইজারল্যান্ডের বিশ্বকাপ।

default-image

রোমান নিজেও অবশ্য সুইজারল্যান্ডে ভালো কিছু করার আশায় আছেন। এবারের বিশ্বকাপ ভেন্যু লুজানের ওয়ার্ল্ড আর্চারি এক্সিলেন্স সেন্টার, যেখানে ২০১৮ সালে দুই দফা উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য গিয়েছিলেন রোমান। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির বৃত্তি নিয়ে লুজানে যাওয়া রোমান সেখানে অনুশীলন শেষে অংশ নেন চ্যালেঞ্জ ডি লুজান প্রতিযোগিতায়। ওই টুর্নামেন্টে ৮ দেশের ২১ প্রতিযোগীর মধ্যে সর্বোচ্চ ৬৭৯ পয়েন্ট পেয়ে জেতেন সোনা।

লুজানের এবারও সাফল্যের আশায় আছেন রোমান। ঢাকা ছাড়ার আগে বলছিলেন, ‘আমরা বিশ্বকাপে ভালো কিছু করার জন্যই যাচ্ছি। নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিতে চাই সুইজারল্যান্ডে। ফাইনালের পদকমঞ্চে ওঠাই আমার একমাত্র লক্ষ্য।’

সুইজারল্যান্ডে গিয়ে অবশ্য কোয়ারেন্টিন ঝামেলায় পড়তে হচ্ছে না রোমানদের। আন্তর্জাতিক আর্চারি ফেডারেশন তিরন্দাজদের কোয়ারেন্টিন ছাড়াই খেলার বিশেষ সুযোগ করে দিয়েছে। তবে সেখানে গিয়ে বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে তাঁদের। স্বাভাবিকভাবেই করোনা পরীক্ষার ছাড়পত্র নিয়ে রোমানদের বিমানে উঠতে হয়েছে। যথারীতি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুশীলন ও প্রতিযোগিতার জন্য শুটিং লাইনে দাঁড়াতে হবে সবাইকে। তির ছোড়ার সময় এবং ডাইনিং হল বাদে সব জায়গায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। টুর্নামেন্ট চলাকালে খেলোয়াড়দের যে কাউকে দৈবচয়ন পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষা করানো হবে। যদি কারও পরীক্ষায় করোনা ধরা পড়ে তাহলে তাঁকে কোয়ারেন্টিনে যেতে হবে। তবে সে ক্ষেত্রে ৪৮ ঘণ্টা পর আবারও তাঁকে আরেকটি পরীক্ষা করা হবে। দ্বিতীয় পরীক্ষায় যদি করোনা নেগেটিভ আসে তাহলেই তাঁকে ভেন্যুতে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে।

আগামীকাল মূল ভেন্যুতে অনুশীলন করবেন রোমানরা। পরশু হবে র‌্যাঙ্কিং রাউন্ড। ১৯ মে শুরু হবে রিকার্ভ ও কম্পাউন্ড বিভাগের একক ইভেন্টের এলিমিনেশন রাউন্ড। ২০ মে শুরু দলগত ইভেন্টের লড়াই।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন