বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

একটা টুর্নামেন্টে সোনা জিতে আত্মবিশ্বাসও বেড়ে গেছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের। মোহাম্মদ আলীর কণ্ঠে সেই আত্মবিশ্বাসের সুর, ‘আগে যখন বিভিন্ন টুর্নামেন্টে খেলতে যেতাম, সবাই মনে করত আমরা বেড়াতে যাচ্ছি। কিন্তু এখন আর সেভাবে কেউ ভাবে না। এখন সবাই সমীহ করে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের।’

পল্টনের শহীদ তাজউদ্দীন ইনডোর স্টেডিয়ামে সংস্কারকাজ চলায় টেবিল টেনিসের অনুশীলনেও বিঘ্ন ঘটেছে। কিন্তু অনুশীলন পুরোপুরি থামিয়ে রাখেনি বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশন। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের দোতলার বারান্দায় মাত্র কয়েকটি টেবিল পেতে অনুশীলন করেছেন খেলোয়াড়েরা। এমনকি রোজার মধ্যেও অনুশীলন চালিয়ে গেছেন সবাই। সেই পরিশ্রম যে ব্যর্থ হয়নি, সেটাই বলছিলেন মোহাম্মদ আলী, ‘এই টুর্নামেন্টে ভালো করার লক্ষ্য নিয়ে আমরা প্রায় দেড় বছর ধরে অনুশীলন করেছি। আমরা গত রোজার সময় ইফতারের পর বাসা থেকে রওনা দিয়ে পল্টনে পৌঁছে প্রায় সাহ্‌রি পর্যন্ত অনুশীলন করেছি। এক দিনও অনুশীলন বন্ধ রাখিনি। এমনকি এখানে এসে গভীর রাত পর্যন্ত অনুশীলন করেছি। সেই পরিশ্রমেরই ফল মিলেছে এবার।’

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন