বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মিয়ানমারে ২০০৩ সালে হওয়া ১৩তম এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথমবার বাংলাদেশ অংশ নেয়। এরপর ২০০৫ সালে ভারতে, ২০০৯ সালে ইন্দোনেশিয়ায়, ২০১১ সালে ইরানে, ২০১৩ সালে চীনা তাইপেতে, ২০১৫ সালে থাইল্যান্ডে, ২০১৭ সালে বাংলাদেশে ও ২০১৯ সালে থাইল্যান্ডে অংশ নেয় এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে। কিন্তু আগের আটবার কোনো পদকই জিততে পারেনি বাংলাদেশ। অবশেষে এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের পদকখরা ঘুচল আজ। বাংলাদেশ শুধু পদক তালিকায় আজ নামই ওঠায়নি, একই দিনে পরপর দুবার ব্রোঞ্জ জিতল।

বনানী আর্মি স্টেডিয়ামে আজ দুপুরে রিকার্ভ পুরুষ দলগত ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জিতেছে বাংলাদেশ। ব্রোঞ্জ লড়াইয়ের ম্যাচে কাজাখস্তানকে ৬-২ সেট পয়েন্টে হারিয়েছেন বাংলাদেশের আর্চাররা। বাংলাদেশের এই দলে খেলেছেন রোমান সানা, হাকিম আহমেদ ও রামকৃষ্ণ সাহা।

প্রথম সেটের ৬ শট থেকে বাংলাদেশ দল তুলে নেয় ৫৪ পয়েন্ট। কাজাখস্তান করে ৫১ পয়েন্ট। এরপর দ্বিতীয় সেটেও বাংলাদেশ জয় পেয়েছে। দ্বিতীয় সেটে বাংলাদেশের স্কোর ৫৬, কাজাখস্তানের ৫৩। ম্যাচে কাজাখস্তান ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে তৃতীয় সেটে। এই সেটে কাজাখস্তান পায় ৫৭, বাংলাদেশ ৫৫। এরপর শেষ সেটে এসে ৫৭-৫৪ পয়েন্টের ব্যবধানে কাজাখস্তানকে হারিয়ে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।
আগামীকাল বাংলাদেশের কোনো খেলা নেই। তবে পরশু বাংলাদেশ তাদের একমাত্র ম্যাচ খেলবে রিকার্ভ মিশ্র দ্বৈতের ফাইনালে। সোনা জয়ের ম্যাচে হাকিম আহমেদ ও দিয়া সিদ্দিকীর বাংলাদেশ মুখোমুখি হবে দক্ষিণ কোরিয়ার।

default-image

আজ বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় ব্রোঞ্জ জেতার পর উচ্ছ্বসিত রোমান সানা বলছিলেন এই সাফল্য তাঁদের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার ফসল, ‘আমরা দিন দিন অনেক উন্নতি করছি। আমাদের প্রত্যেক খেলোয়াড়ের পরিকল্পনা থাকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে পদক নেওয়ার। তবে আমরা হয়তো কোরিয়া বা ভারতের মতো অতটা শক্তিশালী হতে পারিনি। কিন্তু কোচ মার্টিন ফ্রেডরিখ আসার পর থেকেই আমরা আরও আত্মবিশ্বাসী হয়েছি। কারণ, আমরা অনেকগুলো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট খেলেছি। আমি আগেই বলেছিলাম, এখানে এবার পদক জেতার সবচেয়ে বড় সুযোগ রয়েছে আমাদের। সেই স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি বলে ভালো লাগছে।’

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন