বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সম্প্রতি অনলাইনে হঠাৎ করে প্রচারিত হতে থাকা একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, কৌতুক অভিনয়ের একপর্যায়ে এ রকম একটি বাক্য কোবায়াশি উচ্চারণ করেছিলেন যেখানে বলা হয়েছে, ‘আসুন, আমরা হলোকাস্ট খেলা খেলি।’ একটি ইহুদি সংগঠনের নেতা সাইমন উইজেন্থাল এক বিবৃতিতে কোবায়াশির দুই দশকের বেশি আগের সেই অভিনয়ের অংশের সমালোচনা করে সেটাকে ইহুদিদের প্রতি ঢালাওভাবে অবমাননাকর আখ্যায়িত করেন। এর ঠিক পরপর অন্যান্য ইহুদি সংগঠনগুলোও পেছনে লেগে যায়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী ইহুদি নেতা রাব্বাই আব্রাহাম কুপার বলেছেন, নাৎসি গণহত্যার যারা শিকার হয়েছেন, তাদের নিয়ে মশকরা করার অধিকার কারও নেই, এমনকি সেই ব্যক্তি যতই সৃজনশীল হন না কেন। ইহুদি নেতা আরও বলেছেন যে টোকিও অলিম্পিকের সঙ্গে সে রকম কোনো ব্যক্তির সম্পৃক্ততা হবে ৬০ লাখ ইহুদির স্মৃতির প্রতি অবমাননা।

তোলপাড় শুরু হলে জাপানের আয়োজক কমিটিকে শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হয়। আজ এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজক কমিটির প্রধান সেইকো হাশিমোতো বরখাস্তের ঘোষণা প্রচার করে বলেছেন, তাঁর সংগঠন যে পরিচালকের অতীত নিয়ে খুব বেশি যাচাই করে দেখেনি, সেই দায়িত্ব তাঁকে নিতে হচ্ছে এবং সর্বশেষ এই কেলেঙ্কারির জন্য তিনি ক্ষমা চাইছেন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগাও এর ঠিক পরপর কোবায়াশির কড়া সমালোচনা করে বলেছেন যে তাঁর সেই মন্তব্য হচ্ছে ক্ষমার অযোগ্য। তবে তিনি আরও উল্লেখ করেন যে শুক্রবারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী আয়োজন করা হবে।

default-image

কোবায়াশির আজকের বরখাস্ত হওয়া হচ্ছে অলিম্পিক এগিয়ে আসার শেষ সময়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কিত নেতৃস্থানীয় কারও দায়িত্ব থেকে সরে যেতে হওয়ার দ্বিতীয় ঘটনা। এর আগে ছাত্র থাকাকালীন প্রতিবন্ধী সহপাঠীদের নিপীড়ন করার অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ার পর উদ্বোধনী সংগীতের রচয়িতা কেইগো ওইয়ামাদাকে চলতি সপ্তাহের শুরুতে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

কোবায়াশি অবশ্য নিজের সেই অতীত মন্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে আজ একটি বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, কৌতুক অভিনয়ের যে মঞ্চ নাট্য তিনি লিখেছিলেন, সেখানে উল্লেখ করা সেই মন্তব্য ছিল খুবই অপরিপক্ব এবং এর জন্য তিনি ক্ষমাপ্রার্থী।

আগামীকালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাপানের সম্রাট উপস্থিত থেকে অলিম্পিকের যাত্রা শুরুর ঘোষণা দেবেন। তবে এবারের অলিম্পিকে সম্রাটের পরিবারের অন্য কেউ তাঁর সঙ্গে থাকছেন না। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সংক্রমণ থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকতে হচ্ছে এ রকম সিদ্ধান্তের কারণ।

default-image

এদিকে আইওসির প্রেসিডেন্ট টমাস বাখ আজ সম্রাটের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। সম্রাট নারুহিতো তাঁকে বলেছেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ব্যাপক পদক্ষেপ গ্রহণের পাশাপাশি অলিম্পিকের আয়োজন করা সহজ কাজ ছিল না। উত্তরে বাখ বলেছেন যে জাপানের জনগণকে যেন ঝুঁকির মধ্যে পড়তে না হয়, সে জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা আইওসি চালাবে।

জাপানের সংবাদমাধ্যমে আজ প্রচারিত ভিন্ন এক খবরে উল্লেখ করা হয় যে সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে জরুরি অবস্থা চলাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রতি সম্মান দেখিয়ে অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া থেকে বিরত থাকবেন। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি জনপ্রিয় ভিডিও গেমস চরিত্র সুপার মারিওর পোশাক পরে মঞ্চে উপস্থিত হয়ে ২০২০ সালের অলিম্পিক উপলক্ষে টোকিওতে সবাইকে স্বাগত জানিয়ে বিশ্বজুড়ে চমক সৃষ্টি করেছিলেন।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন