বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে ইন্দোনেশিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল। শ্রীলঙ্কা তাদের প্রথম ম্যাচে সিঙ্গাপুরকে হারিয়েছিল ৫-২ গোলে। টানা ২ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। ১২ মে সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি বাংলাদেশ খেলবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য।

আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের জয়রথ দারুণভাবে ছুটে চলেছে। গত মার্চে ইন্দোনেশিয়ায় এএইচএফ কাপে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ জিতেছিল টানা ৬ ম্যাচ। এরপর থাইল্যান্ডে ২ জয়। সব মিলিয়ে টানা ৮টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

default-image

প্রতিপক্ষ হিসেবে শ্রীলঙ্কা কখনোই বাংলাদেশের জন্য আতঙ্কের নাম ছিল না। গত আট বছরে আজকের ম্যাচসহ সব মিলিয়ে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ৮ বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে শুধু ২০১৪ সালে এশিয়ান গেমস বাছাই হকিতে ২-২ গোলে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ড্র হয়। এরপর টানা ৭ ম্যাচেই শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ।

আজ বাংলাদেশের হয়ে প্রথমে গোলমুখ খোলেন আশরাফুল ইসলাম। ম্যাচের ১৮ মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে গোল করে তিনি এগিয়ে নেন বাংলাদেশকে। এরপর ২৩ মিনিটে পেনাল্টি স্ট্রোক থেকে খোরশেদুর রহমান করেন ২-০; যদিও ২টি গোল খেয়ে বারবার ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করেছে শ্রীলঙ্কা।

ম্যাচের প্রথম ও তৃতীয় কোয়ার্টারে বাংলাদেশ অবশ্য কোনো গোল পায়নি। তৃতীয় কোয়ার্টারে ৫টি পেনাল্টি কর্নার পায় শ্রীলঙ্কা। অথচ এত সুযোগ পেয়েও তা লঙ্কানরা কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের দারুণ দক্ষতার কারণে।

default-image

তবে ৪৪ মিনিটে ভিপুলের ফিল্ড গোলে স্কোরলাইন ২-১ করে শ্রীলঙ্কা। এরপর অবশ্য ৫৩ মিনিটে শ্রীলঙ্কাকে হতাশায় ডুবিয়ে বাংলাদেশের তৃতীয় গোলটি করেন রোমান সরকার। ম্যাচ শেষ হওয়ার ২৮ সেকেন্ড আগে আরও একবার পেনাল্টি কর্নার পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু সেবারও তারা গোল করতে ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন