বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কিন্তু তাই বলে কি একদমই সিনা-রক-আন্ডারটেকাররা ডব্লুডব্লুইকে ছাড়া থাকতে পারেন? পারেন না। আর পারেন না বলেই নিয়মিত রেসলার হিসেবে না হলেও মাঝেমধ্যে বিভিন্ন উপলক্ষে দেখা যায় তাঁদের। আজ যেমন দেখা গেল জন সিনাকে।

ডব্লুডব্লুইয়ের বার্ষিক পে-পার-ভিউ ‘মানি ইন দ্য ব্যাংক’-এ ফিরেছেন এই কিংবদন্তি রেসলার। ইউনিভার্সাল চ্যাম্পিয়ন রোমান রেইনসের সঙ্গে আরেক কিংবদন্তি এজের ম্যাচ শেষ হওয়ার পর পে-পার-ভিউয়ের একেবারে শেষ মুহূর্তে হাজির হয়ে সবাইকে চমকে দেন সিনা। বহুদিন পর আবারও ডব্লুডব্লুইয়ের কোনো প্রাঙ্গণে বেজে ওঠে ‘মাই টাইম ইজ নাও’ থিম সংয়ের সুর।

গত বছর এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হওয়া রেসলম্যানিয়া ৩৬-এর পর এই প্রথম সরাসরি ডব্লুডব্লুইয়ের কোনো ইভেন্টে দেখা গেল সিনাকে। সেবার ‘দ্য ফিন্ড’ ব্রেই ওয়্যাটের বিপক্ষে ‘ফায়ারফ্লাই ফান হাউস’ ম্যাচে অংশ নিয়ে হেরেছিলেন সিনা। এরপর বিভিন্ন চলচ্চিত্রের কাজে ব্যস্ত হয়ে যান। এই সময়ে বিয়েও করেছেন তিনি। গাঁটছড়া বেঁধেছেন কানাডার প্রকৌশলী শে শারিয়াতজাদের সঙ্গে।

সিনার এই ফেরাটা আরও অসাধারণ রূপ নিয়েছে দর্শকদের উপস্থিতির কারণে। করোনার প্রকোপের কারণে এত দিন ডব্লুডব্লুইয়ের কোনো প্রাঙ্গণে দর্শকদের ঢুকতে দেওয়া হতো না। ভার্চ্যুয়াল ‘থান্ডারডোম’ পদ্ধতিতে বাসা থেকে দর্শকেরা সরাসরি হাজির হয়ে দেখতেন ডব্লুডব্লুইয়ের যেকোনো শোতে। কিন্তু টেক্সাসের ডিকিস অ্যারেনাতে মানি ইন দ্য ব্যাংক দেখার জন্য উপস্থিত হয়েছিলেন হাজার হাজার দর্শক। সিনার থিম সং বাজার সঙ্গে সঙ্গে উন্মাতাল হয়ে পড়েন প্রত্যেকে।

ইউনিভার্সাল চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে এজকে হারিয়েছেন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রোমান রেইনস। সেথ রলিন্স এজকে আক্রমণ করলে ম্যাচ জেতার সুযোগ পেয়ে যান রেইনস। ম্যাচ শেষে এজ আর রলিন্স মারামারি করতে করতে দর্শকদের মধ্যে ঢুকে পড়েন। মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে এরপর রোমান রেইনস কথা বলা শুরু করলেই বেজে ওঠে সিনার থিম সং, রিংয়ে আসেন ১৬ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন।

দুজন মুখোমুখি হলেও কেউ কাউকে কিছু বলেননি। এই অবস্থাতেই শেষ হয় ‘মানি ইন দ্য ব্যাংক’। শোর সরাসরি সম্প্রচার শেষ হলে দর্শকদের উদ্দেশ্যে কথা বলেন সিনা। জানিয়ে দেন, এক দিনের জন্য ফেরেননি তিনি। এখন মোটামুটি নিয়মিতই দেখা যাবে তাঁকে। সিনার এই কথার কারণে আসন্ন সামারস্ল্যামে রোমান রেইনসের সঙ্গে জন সিনা ইউনিভার্সাল চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য লড়তে পারেন—এই গুঞ্জনটা আরেকটু বাতাস পেল।

এবার ছেলেদের মানি ইন দ্য ব্যাংক ম্যাচে জিতেছেন সাবেক ইন্টারকন্টিনেন্টাল চ্যাম্পিয়ন বিগ ই। মেয়েদের ম্যাচটায় জিতেছেন নিকি অ্যাশ। আগামী এক বছরের মধ্যে যেকোনো সময়ে যেকোনো পরিস্থিতিতে মানি ইন দ্য ব্যাংক ব্রিফকেস ‘ক্যাশ ইন’ করার মাধ্যমে যেকোনো মূল চ্যাম্পিয়নকে চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য চ্যালেঞ্জ জানাতে পারবেন এই দুজন (বিগ ই পারবেন ইউনিভার্সাল চ্যাম্পিয়ন আর ডব্লুডব্লুই চ্যাম্পিয়নের মধ্যে একজনকে চ্যালেঞ্জ জানাতে, নিকি অ্যাশ চ্যালেঞ্জ জানাতে পারবেন স্ম্যাকডাউন ওমেন্স চ্যাম্পিয়ন বা র ওমেন্স চ্যাম্পিয়নের যেকোনো একজনকে)।

কোফি কিংস্টনকে হারিয়ে ডব্লুডব্লুই চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রেখেছেন ববি ল্যাশলি। রিয়া রিপলিকে হারিয়ে নতুন র ওমেন্স চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন শার্লট ফ্লেয়ার। রে মিস্টিরিও ও তাঁর ছেলে দমিনিক মিস্টিরিওকে হারিয়ে স্ম্যাকডাউন ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন জিমি উসো ও জে উসো।


তব সব ছাড়িয়ে মানি ইন দ্য ব্যাংকে আলোচনার মূল বিষয় একটাই। জন সিনা ফিরেছেন!

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন