বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাশিয়ার ইয়ান নেপোনিয়াখটিকে টাইব্রেকারে হারিয়ে সর্বকনিষ্ঠ দাবাড়ু হিসেবে র‍্যাপিড দাবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন আবদুসাত্তারভ। র‍্যাপিড দাবার রোমাঞ্চকর শেষ দিনে মুকুটটি জিতলেন তিনি।

ইউক্রেনের আন্তন কোরোবভের কাছে শুধু এক ম্যাচে হেরেছেন আবদুসাত্তারভ। অন্য পাঁচ ম্যাচে টাই করেন। এতে ৯.৫ পয়েন্ট হয়ে যায় আবদুসাত্তারভের। টুর্নামেন্টের ১৩তম রাউন্ডে সাতটি জয়ের মধ্যে গতবারের চ্যাম্পিয়ন কার্লসেনকেও হারান উজবেকিস্তানের এ দাবাড়ু।

default-image

টানা পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন কার্লসেনের সঙ্গে ১৩তম রাউন্ডে ৯ পয়েন্ট নিয়ে সমান অবস্থানে ছিলেন আবদুসাত্তারভ, নেপোনিয়াখটি ও যুক্তরাস্ট্রের ফাবিয়ানো কারুয়ানা। শেষ দিনে অর্ধেক পয়েন্ট নিয়ে কার্লসেন শীর্ষে থাকলেও আবদুসাত্তারভের বিপক্ষে ম্যাচের শুরুতে একটি চালে ভুল করে বসেন।

চার খেলোয়াড়ের পয়েন্ট সমান ৯.৫ হলেও সম্মিলিত পরিসংখ্যানে এগিয়ে থাকা দুই সেরা খেলোয়াড়ের মধ্যে টাইব্রেকার অনুষ্ঠিত হয়।

যদিও কার্লসেন এ নিয়মের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘পুরোপুরি হাস্যকর।’ আবদুস সাত্তারভকে অভিনন্দন জানিয়ে করা টুইটে কার্লসেন বলেছেন, ‘নিয়ম নিয়ে ঝগড়াঝাঁটি এক পাশে সরিয়ে বলাই যায়, কী বিস্ময়কর অর্জন!’

বিশ্ব র‍্যাপিড দাবা চ্যাম্পিয়নশিপে প্রতি খেলোয়াড় ১৫ মিনিট করে সময় পান, এ ছাড়া প্রতিটি চালে ১০ সেকেন্ড করে অতিরিক্ত সময় দেওয়া হয়।

টাইব্রেকারের নিয়ম নিয়ে নরওয়ের এক টিভি চ্যানেলেও ক্ষোভ উগরে দেন কার্লসেন, ‘পুরোপুরি হাস্যকর নিয়ম। হয় সমান পয়েন্ট পাওয়া সব খেলোয়াড় টাইব্রেকারে অংশ নেবে, নতুবা কেউ নেবে না।’

প্রতিষ্ঠিত দাবাড়ুদের বিপক্ষে মানসিক সহ্যক্ষমতার জন্য আলাদা খ্যাতি কুড়োনো আবদুস সাত্তারভ ১৩ বছর বয়সে দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে গ্র্যান্ডমাস্টার খেতাব জেতেন। ১১ বছর বয়সের মধ্যে বিশ্বের সেরা ১০০ উদীয়মান দাবাড়ুর তালিকায়ও নিজেকে নিয়ে যান আবদুস সাত্তারভ।

অন্য খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন