বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে বাংলাদেশ সময় বুধবার মধ্যরাতে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টেনিস খেলার উদ্দেশে মেলবোর্ন বিমানবন্দরে নামেন জোকোভিচ। টিকার শর্ত শিথিল করেই তাঁকে ভিসা দেওয়া হয়েছিল যেন তিনি অস্ট্রেলিয়ার এই গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্টে খেলতে পারেন।

করোনা প্রতিষেধক টিকা না নিয়ে বিশেষ মেডিকেল প্যানেলের ছাড়পত্র নিয়ে ভিসার আবেদন করেছিলেন জোকোভিচ। সার্বিয়ান তারকাকে ভিসা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই অস্ট্রেলীয় সরকারের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়।

default-image

বিশেষ ক্ষেত্রে নিয়মের ব্যত্যয় করা হবে কিনা, এ নিয়েও বিতর্ক তৈরি হয়। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েই দেন, কীসের ভিত্তিতে ওই মেডিকেল প্যানেল জোকোভিচকে ছাড়পত্র দিয়েছে, সেটি আগে জানতে হবে। সেই জবাব অস্ট্রেলীয় ইমিগ্রেশনের কাছে গ্রহণযোগ্য না হলে দেশে ফেরত যেতে হবে বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকাকে।

অস্ট্রেলীয় সংবাদপত্র ‘দ্য এজ’ জানিয়েছে, জোকোভিচের ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় তাঁকে মেলবোর্ন বিমানবন্দর থেকে বের হতে দেওয়া হয়নি।

মেলবোর্ন বিমানবন্দরের একজন ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘অস্ট্রেলিয়াতে প্রবেশের জন্য প্রয়োজনীয় যেসব কাগজপত্র দেখাতে হয়, মি. জোকোভিচ সেগুলো দেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন। সুতরাং স্বয়ংক্রিয়ভাবেই তাঁর প্রবেশ ভিসা বাতিল হয়ে গেছে।’

তিনি জানিয়েছেন, ‘বিদেশি নাগরিকদের মধ্যে যাদের ভিসা থাকবে না কিংবা যাদের ভিসা বাতিল করা হবে, তারা অস্ট্রেলিয়াতে ঢুকতে পারবে না। তাদের আটক করা হবে এবং নিজেদের দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে সার্বিয়ান প্রেসিডেন্ট তাঁর দেশের মহাতারকাকে অপমানের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে বলে অস্ট্রেলীয় সরকারের কাছে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন, অস্ট্রেলিয়াতে জোকোভিচকে হয়রানি করা হচ্ছে।

টেনিস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন