ফেদেরার-নাদালদের রাজত্বে আসছে নতুন ‘রাজা’

ফেদেরার ও নাদাল— বন্ধুত্ব ও প্রতিদ্বন্দ্বীতা অনেক দিনের।
ফেদেরার ও নাদাল— বন্ধুত্ব ও প্রতিদ্বন্দ্বীতা অনেক দিনের।ছবি: এএফপি
বিজ্ঞাপন

‘অঘটন’টা সর্বশেষ ঘটিয়েছিলেন মারিন চিলিচ। ‘বিগ থ্রি’ রজার ফেদেরার, রাফায়েল নাদাল, নোভাক জোকোভিচ ও একাধিক গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী অ্যান্ডি মারে, স্তানিসলাস ভাভরিঙ্কা বাদে সর্বশেষ এই চিলিচই গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছিলেন সেই ২০১৪ সালে, এই ইউএস ওপেনেই।

অর্ধযুগ পর চিলিচের পথ ধরে আবারও নতুন এক গ্র্যান্ড স্লামজয়ী খেলোয়াড় পেতে যাচ্ছে বিশ্ব। ‘বিগ থ্রি’র বাইরে টেনিসের নবযুগও কি শুরু হচ্ছে না তাতে?

চোটের কারণে ফেদেরার ইউএস ওপেন খেলবেন না, নাদালের আপত্তি ছিল করোনাকালে খেলা নিয়ে। নোভাক জোকোভিচ দ্বিতীয় রাউন্ডে ঝামেলা পাকিয়েছিলেন লাইন জাজকে আঘাত করে, বহিষ্কৃত হয়ে। দ্বিতীয় রাউন্ডে হেরেছেন মারে, নাদালের পথ ধরে ভাভরিঙ্কা খেলেননি। ফলে নতুন এক চ্যাম্পিয়ন যে আসছে, সেটা বোঝা হয়ে গিয়েছিল বেশ আগে থেকেই।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
একটা গ্র্যান্ড স্ল্যামের সেমিতে খেলছি যেখানে আমার ফেবারিট থাকার কথা, সেখানে কি না আমি দুই সেটে পিছিয়ে আছি! কোনো সুযোগই দেখছিলাম না নিজের।
আলেক্সান্ডার জভেরেভ, ইউএস ওপেন ফাইনালে ওঠা জার্মান তারকা

কিন্তু কে হতে পারেন সেই নতুন চ্যাম্পিয়ন? সেটাই মোটামুটি নিশ্চিত হয়ে গেল আজ। ফাইনালে কাল অস্ট্রিয়ার ডমিনিক থিম ও জার্মানির আলেক্সান্ডার জভেরেভের মধ্যে একজনের হাতে উঠতে যাচ্ছে শিরোপা।

বাংলাদেশ সময় আজ ভোরে দিনের প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন-কাব্য লিখেছেন জভেরেভ। জোকোভিচকে টপকে সেমিতে ওঠা স্প্যানিশ খেলোয়াড় পাবলো কারেনিও বুস্তার বিপক্ষে নেমে দুই সেট হেরে যান সরাসরি। আরেক সেট হারলেই বিদায়—এমন অবস্থায় খাদের কিনারা থেকে ঘুরে এসে জিতে নেন পরের তিন সেট। ৩-৬, ২-৬, ৬-৩, ৬-৪, ৬-৩ গেমে ম্যাচ জিতে ওপেন যুগে চতুর্থ জার্মান হিসেবে পুরুষ এককের ফাইনালে ওঠেন জভেরেভ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এর আগে ক্যারিয়ারে কখনো দুই সেট হেরে ম্যাচ জিততে পারেননি এই তারকা। এবারই প্রথম। এভাবে যে জিতে যাবেন, সে বিশ্বাস তাঁর ছিল না বলেই জভেরেভ জানালেন ম্যাচ শেষে সাক্ষাৎকারে, ‘ম্যাচের মধ্যে স্কোরবোর্ডে তাকিয়ে দেখছিলাম, আমি আসলেই দুই সেটে পিছিয়ে আছি! আমার বিশ্বাসই হচ্ছিল না ব্যাপারটা। একটা গ্র্যান্ড স্ল্যামের সেমিতে খেলছি যেখানে আমার ফেবারিট থাকার কথা, সেখানে কি না আমি দুই সেটে পিছিয়ে আছি! কোনো সুযোগই দেখছিলাম না নিজের। এতটাই বাজে খেলছিলাম।’

নিজের সুযোগ পরে নিজেই করে নিয়েছেন জভেরেভ। জিতেছেন পরের তিন সেট, ‘এই পর্যায়ে এর আগে দুই সেট হারের পর ম্যাচ জেতার অভিজ্ঞতা কখনো হয়নি। আমি অনেক খুশি এই পর্যায়ে এসে এমন কিছু করতে পেরে।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে দুই সেট হারের পর ম্যাচ জেতার সর্বশেষ উদাহরণ ইউএস ওপেন দেখেছিল সেই ২০১১ সালে, জোকোভিচ-ফেদেরার সেমিফাইনালে। সেবার দুই সেটে পিছিয়ে পড়েও ম্যাচ জিতেছিলেন জোকোভিচ, পরে জিতে নেন শিরোপাটাই। জভেরেভ নিশ্চিত জোকোভিচের পথই অনুসরণ করতে চাইবেন!

শিরোপা জয়ের পথে জভেরেভের বাধা ডমিনিক থিম। দুজনের মধ্যে অপেক্ষাকৃত অভিজ্ঞই বলা চলা তাঁকে। এর আগে তিনবার গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনাল খেলা এই অস্ট্রিয়ান তারকা শিরোপার স্বাদ পাননি কখনো। ২০২০ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে জোকোভিচের কাছে হেরেছিলেন, আগের দুই বছরের দুই ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে হেরেছিলেন নাদালের কাছে। এই থিমকেই নাদালের পর মাটির কোর্টের সবচেয়ে ভালো খেলোয়াড় মানেন অনেকে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

যদিও হার্ড কোর্টে পারফরম্যান্স অতটা ভালো ছিল না কখনই। সে দুর্বলতা কাটানোর জন্য এবারের ইউএস ওপেনকেই বেছে নিয়েছেন থিম। সেমিফাইনালে র‍্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বরে থাকা দানিল মেদভেদেভকে হারিয়েছেন ৬-২, ৭-৬ (৭), ৭-৬ (৫) গেমে। এই ম্যাচ জিতেই ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ইউএস ওপেনের ফাইনালে উঠেছেন থিম।

থিম-জভেরেভের এর আগের নয় লড়াইয়ে থিম জিতেছেন সাতবার, জভেরেভ দুবার। হার্ড কোর্টেও আধিপত্য থিমের, মুখোমুখি চার ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছেন। দুজনের মধ্যে সর্বশেষ তিন ম্যাচে থিমই জিতেছিলেন।

এবার শেষ পর্যন্ত কার হাতে উঠবে শিরোপা? ফেদেরার-নাদাল-জোকোভিচের রাজত্বে ভাগ বসাবেন কে?

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন