default-image

এবারের উইম্বলডন শুরুর আগেও ৪০ বছর বয়সী ফেদেরার ছিলেন র‌্যাঙ্কিংয়ের ৯৭ নম্বরে। এবার উইম্বলডনে খেলেননি তিনি, অন্যদিকে র‌্যাঙ্কিং থেকে কাটা গেছে গত বছরের উইম্বলডনের হিসাবনিকাশ। ২০২১ সালের সেই উইম্বলডনে সর্বশেষ কোর্টে নেমেছিলেন ফেদেরার। গত বছরের উইম্বলডনে পোল্যান্ডের হুবার্ত উরকাৎসের কাছে হেরে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন। এরপরই তিনি হাঁটুর অস্ত্রোপচার করান। সেই চোট এখনো পুরোপুরি ভালো হয়নি।

ফেদেরার আবার কোর্টে ফেরার কথা ভাবছেন সেপ্টেম্বর মাসে, লেভার কাপ দিয়ে। এ ছাড়া আগামী বছর অল ইংল্যান্ড ক্লাবের ১০০ বছর পূর্তিতে উইম্বলডনে খেলার ইচ্ছার কথাও বলেছেন ফেদেরার। ২০টি গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী ৪০ বছর বয়সী ফেদেরার বলেছেন, ‘আশা করছি আরেকবার আমি (উইম্বলনডনে) খেলতে পারব।’

default-image

এবারের উইম্বলডন দিয়ে একক টেনিসে ফিরেও ডব্লুটিএ র‌্যাঙ্কিং থেকে ছিটকে পড়েছেন সেরেনা উইলিয়ামসও। এবারের উইম্বলডনের পারফরম্যান্স যে যোগ হয়নি এটিপি ও ডব্লুটিএ র‌্যাঙ্কিংয়ে। রাশিয়ার ইউক্রেন আক্রমনের জেরে উইম্বলডনে রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়দের নিষিদ্ধ করে অল ইংল্যান্ড ক্লাব। সেই নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়াতেই এটিপি ও ডব্লুটিএ এবারের উইম্বলডনের পয়েন্ট যোগ না করার সিদ্ধান্ত নেয়।

তাতে সবচেয়ে বড় ক্ষতি হয়েছে এবারের উইম্বলডনের দুই একক চ্যাম্পিয়ন নোভাক জোকোভিচ ও ইয়েলেনা রিবাকিনার। এবারের উইম্বলডনের পয়েন্ট যোগ না হওয়ায়, ও গতবারের উইম্বলডনে পাওয়া ২ হাজার পয়েন্ট হিসাব থেকে বাদ পড়ায় টানা চতুর্থ উইম্বলডন জেতা জোকোভিচ তৃতীয় স্থান সাতে নেমে গেছেন। ফাইনালে জোকোভিচের কাছে হারা নিক কিরিওস ৪০ থেকে নেমে গেছেন ৪৫–এই।

প্রথম কাজাখ হিসেবে গ্র্যান্ড স্লাম এককে চ্যাম্পিয়ন হওয়া রিবাকিনা আছেন আগের মতোই ২৩ নম্বরে। রানারআপ তিউনিসিয়ার উনস জাবির দুই থেকে নেমে গেছেন পাঁচে।

ছেলেদের বিভাগে রাশিয়ার দানিল মেদেভেদেভ ও মেয়েদের বিভাগে পোল্যান্ডের ইগা সিওনতেক ধরে রেখেছেন শীর্ষস্থান।

টেনিস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন