বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০২১ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে ১০ শতাংশ, ডিসেম্বরের মধ্যে ৪০ শতাংশ ও ২০২২ সালের মাঝামাঝি প্রতিটি দেশের ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দিতে চান বলে জানিয়েছিলেন তেদরোস। গতকাল তিনি বলেছেন, এখনো ৯০টি দেশ ৪০ শতাংশ ও এর মধ্যে ৩৬টি দেশ ১০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে পারেনি।

ডব্লিউএইচওর প্রধান আরও বলেন, এখন বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে যাঁরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন, তাঁদের বেশির ভাগ করোনাভাইরাসের টিকা নেননি। তবে তিনি এটাও বলেছেন যে টিকা করোনায় গুরুতর অসুস্থতা ও মৃত্যু ঠেকাতে খুব কার্যকর হলেও ভাইরাসটির সংক্রমণ প্রতিরোধের পূর্ণ সক্ষমতা টিকার নেই।

তেদরোস বলেন, সংক্রমণ যত বাড়বে, হাসপাতালে ভর্তি, মৃত্যু ও ঘরবন্দী মানুষের সংখ্যাও তত বাড়বে। এর মধ্যে শিক্ষক ও স্বাস্থ্যকর্মীও রয়েছেন। এ ছাড়া এতে করে অমিক্রনের চেয়ে আরও বেশি মাত্রায় সংক্রামক ও আরও প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের নতুন কোনো ধরন আসার ঝুঁকি তৈরি হবে।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন