বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি কোভিড-১৯–এর উপসর্গ থাকা মানুষদের ওপর একটি চিকিৎসা পদ্ধতির পরীক্ষামূলক প্রয়োগও চালিয়েছে ওষুধ কোম্পানিটি। দুটি অ্যান্টিবডির সমন্বয়ে এ জেড ডি ৭৪৪২ নামক এ চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। গত মাসে কোম্পানিটি জানায়, এ পরীক্ষায় ইতিবাচক ফল পেয়েছে তারা। এ চিকিৎসা পদ্ধতি কতটা নিরাপদ ও কার্যকর, তা জানতে এর চূড়ান্ত পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে। করোনার টিকা উৎপাদনের পাশাপাশি এ নিয়ে কাজ করছে তারা।

গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রধান নির্বাহী প্যাসকেল সোরিয়ট দাবি করেন, তাঁর কোম্পানি কখনোই উচ্চ মূল্যে টিকা বিক্রি করতে চায় না। তিনি বলেন, মানুষকে সাশ্রয়ী মূল্যে টিকা সরবরাহ করতে চায় অ্যাস্ট্রাজেনেকা।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যৌথভাবে তৈরি এই কোভিড টিকা থেকে চলতি বছর এ পর্যন্ত ২২২ কোটি রাজস্ব পেয়েছে তারা। এ সময়ের মধ্যে বিশ্বজুড়ে টিকার ৫৮ কোটি ডোজ সরবরাহ করা হয়েছে। সোরিয়ট জানান, বিশ্বে ফাইজারের পর অ্যাস্ট্রাজেনেকাই সবচেয়ে বেশি টিকা সরবরাহ করতে পেরেছে। এর মধ্য দিয়ে অনেক কোভিড আক্রান্তের হাসপাতালে ভর্তি ঠেকাতে ভূমিকা রেখেছে তারা।

সোরিয়ট দাবি করেন, অ্যাস্ট্রাজেনেকার বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে কোম্পানিটির রাজস্ব বৃদ্ধির পাশাপাশি টিকা সরবরাহ ব্যবস্থাও জোরালো হবে। অ্যালেক্সিয়ন কোম্পানিকে অধিগ্রহণের কারণে বিশ্বজুড়ে রোগীদের বিভিন্ন থেরাপি সুবিধা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে বলেও আশা করেন তিনি।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন