default-image

দলের নেতৃত্ব নিয়ে আস্থা ভোটে উতরে গেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবট। এরপর তিনি দলে অনৈক্য ও অনিশ্চয়তা দূর করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান। খবর এএফপির।
ধারাবাহিক ভুল পদক্ষেপে অ্যাবটের জনপ্রিয়তায় ধস নামার পর পেছনের সারির নেতারা গত শুক্রবার লিবারেল পার্টিতে তাঁর নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এবং পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানান। তাঁদের লক্ষ্য ছিল দলের নেতা প্রধানমন্ত্রী অ্যাবট ও উপনেতা পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপের পদ শূন্য ঘোষণা করে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করা। এরপর গত রোববার ভোটের আয়োজন করা হয়। দলের ১০১ জন এমপির মধ্যে ৬১ জন অ্যাবটের পক্ষে ভোট দেন। বিপক্ষে ভোট পড়ে ৩৯টি।
পরীক্ষায় উতরে যাওয়ার পর গতকাল সোমবার টেলিভিশনে সম্প্রচার করা বিবৃতিতে ‘দলে আস্থার সংকটের বিষয়টি অতীত’ বলে মন্তব্য করেন অ্যাবট বলেন, ইস্যুটির নিষ্পত্তি হয়ে গেছে। তিনি আরও বলেন, ‘তখনই আপনারা সরকার নির্বাচিত করেন, যখন আপনারা প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করেন। যতক্ষণ পর্যন্ত আপনারা আপনাদের মন পরিবর্তনের সুযোগ পাচ্ছেন, ততক্ষণ পর্যন্ত সরকার ও প্রধানমন্ত্রীকে বহাল রাখা আপনাদের প্রাপ্য। কাজেই এখন আবারও আমাদের প্রধান মনোযোগ দৃঢ় অর্থনীতি এবং জাতির নিরাপত্তা ও চাকরির সুযোগ সৃষ্টির দিকে।’
টনি অ্যাবট আরও বলেন, ‘আমরা জনগণের জন্য কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দলের ভেতরের যে অনিশ্চয়তা ও অনৈক্য লিবারেল পার্টির দুটি সরকারকে ধ্বংস করেছে, আমরা তা দূর করতে চাই। আমরা একটি ভালো সরকার আপনাদের উপহার দিতে চাই, যা আপনাদের প্রাপ্য।’
২০০৭ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকাকালে লেবার পার্টি দুই দফায় নেতৃত্বের পরিবর্তন আনে।

বিজ্ঞাপন
বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন