default-image

ইরান ও পানামার পতাকাবাহী দুটি জাহাজকে নিজেদের জলসীমা থেকে আটক করার দাবি করেছে ইন্দোনেশিয়া। স্থানীয় সময় রোববার জাহাজ দুটিকে জব্দ করে ইন্দোনেশিয়ার কোস্টগার্ড। ইন্দোনেশিয়া বলছে, ইরানের পতাকাবাহী জাহাজ এমটি হর্স ও পানামার পতাকাবাহী জাহাজ এমটি ফ্রিয়ে তাদের জলসীমায় অবৈধভাবে জ্বালানি তেল পরিবহন করছিল। খবর রয়টার্স।

ইন্দোনেশিয়ার কোস্টগার্ডের মুখপাত্র উইসনু প্রামানদিতা এক বিবৃতিতে বলেন, অধিকতর তদন্তের জন্য কালিমানতান অঞ্চল থেকে জব্দ করা জাহাজগুলোকে রিয়ায়ু দ্বীপ প্রদেশের বাতাম দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জাহাজ দুটিকে স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে চিহ্নিত করা হয়। সে সময় জাহাজ দুটিতে নিজ নিজ দেশের পতাকা ছিল না। একই সঙ্গে তারা স্বয়ংক্রিয় শনাক্তকরণ পদ্ধতি বন্ধ করে রেখেছিল।

জাহাজ দুটি বেতারবার্তারও কোনো জবাব দিচ্ছিল না। পানামার জাহাজ এমটি ফ্রিয়ের চারপাশে জ্বালানি তেল ছড়িয়ে পড়তে দেখা গিয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, আন্তর্জাতিক নৌযান সংস্থাগুলো জাহাজের স্বচ্ছতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে ট্রান্সপন্ডার (তারহীন যোগাযোগব্যবস্থা) ব্যবহার করে থাকে। তবে ডাকাতি বা এ ধরনের ঝামেলা এড়াতে জাহাজের ক্রুরা চাইলে এই যন্ত্র বন্ধ করে রাখতে পারেন। কিন্তু অবৈধ কাজের সময় নিজেদের অবস্থান লুকাতে প্রায়ই ট্রান্সপন্ডার বন্ধ রাখার প্রবণতা দেখা যায়।

তবে জাহাজ জব্দের বিষয়ে আজ সোমবার পর্যন্ত ইরানের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন