বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিউইয়র্ক পোস্ট বলছে, সবার আগে চীনা ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটকে ওই ভিডিওটি শেয়ার করা হয়। এরপর ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেটি ছড়িয়ে পড়ে। ইতিমধ্যে ভিডিওটির ভিউ কয়েক হাজার, মন্তব্য এসেছে কয়েক শ।
ভিডিওতে ইলন মাস্কের মতো ওই ব্যক্তিকে দেখে অনেকে অবাক হয়েছেন। যেহেতু ওই ব্যক্তি চীনা নাগরিক তাই কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তাঁকে ই লং মাস্ক নামে সম্বোধন করেন। কারণ, চীনে নামের বানানগুলো এ আদলে হয়ে থাকে। অনেকে আবার ওই ব্যক্তির অস্তিত্বই মানতে নারাজ। বলছেন, চালাকি করে নকল ভিডিও বানানো হয়েছে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) মতো প্রযুক্তি ব্যবহার করে এমন বানোয়াট ভিডিও তৈরির ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। বানোয়াট ছবিগুলো সাধারণত অন্য কারও ছবির ওপর জুড়ে দেওয়া হয়। এটা করা হয় খুব চতুরতার সঙ্গে। এগুলোকে এতটাই বাস্তবসম্মত বলে মনে হয় যে ভিডিওটি আসল না নকল, তা যাচাই করা কঠিন হয়ে পড়ে।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী বিষয়টি উল্লেখ করে লিখেছেন, এটা একেবারেই বানোয়াট। তিনি কথা বলার সময় ক্যামেরাটি চারপাশে যখন ঘোরানো হচ্ছিল তখন তাঁর মুখ দেরিতে দেখা গেছে। আরেক ফেসবুকারও একমত পোষণ করে জানান ভিডিওটি নকল।

গত মার্চে হলিউড তারকা টম ক্রুজের এ রকম বানোয়াট কিছু ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল। ভিডিওগুলো এতটাই নিখুঁত ছিল যে কোটি কোটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীর বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়েছিল পর্দায় তাঁরা যে অভিনেতা টম ক্রুজকে দেখেন ভিডিওটি তাঁর নয়।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন