default-image

ইসরায়েলের সঙ্গে এবার সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণা দিল আরেক আরব দেশ মরক্কো। যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় এই সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসে আজ বৃহস্পতিবার। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটে নিজেও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে গত চার মাসে চারটি আরব দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের ঘোষণা দিল। এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও সুদান এই ঘোষণা দেয়। এসব চুক্তিতেও মধ্যস্থতা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর টুইটে বলেন, ‘আজ (বৃহস্পতিবার) আরেকটি বিশাল সাফল্য অর্জিত হলো। আমাদের দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধু ইসরায়েল ও মরক্কো পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে রাজি হয়েছে, যা মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় অনেক বড় একটি অর্জন।’

বিজ্ঞাপন

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মরক্কোর বাদশাহ ষষ্ঠ মোহাম্মদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার টেলিফোনে কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের ঘোষণাটি আসে।

আল–জাজিরা জানায়, চুক্তির শর্তানুসারে ডোনাল্ড ট্রাম্প ওয়েস্টার্ন সাহারার ওপর মরক্কোর সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দিতে রাজি হয়েছেন। এই অঞ্চল নিয়ে মরক্কোর সঙ্গে আলজেরিয়া সমর্থিত পোলিসারিও ফ্রন্টের দ্বন্দ্ব চলছে। পোলিসারিও ফ্রন্ট ওই অঞ্চলে স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চায়। চুক্তি অনুযায়ী, মরক্কো ইসরায়েলের সঙ্গে পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করবে। দেশটির সঙ্গে দাপ্তরিক যোগাযোগ ও আকাশ যোগাযোগ শুরু করবে।

হোয়াইট হাউসের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার সাংবাদিকদের বলেন, ইসরায়েলে দূতাবাস খোলার লক্ষ্যে রাবাত ও তেল আবিবে শিগগির লিয়াজোঁ কার্যালয় আবারও চালু করতে যাচ্ছে মরক্কো। দেশ দুটি নিজ নিজ দেশের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতার সম্পর্কও স্থাপন করবে। এ সময় কুশনার আরও বলেন, সৌদি আরবও ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেবে। এটা অনিবার্য।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন