বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এক বিবৃতিতে জাতিসংঘের মহাসচিব বলেন, ‘নোবেল বিজয়ী সাংবাদিকদের অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি আমাদের বিশ্বজুড়ে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা, সাংবাদিকদের মৌলিক কাজের স্বীকৃতি এবং সব স্তরে মুক্ত, স্বাধীন ও বৈচিত্র্যময় গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ জোরদার করতে হবে।’
সাংবাদিকদের ছাড়া কোনো সমাজ মুক্ত ও অবাধ হতে পারে না মন্তব্য করে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, ‘সাংবাদিকেরা খারাপ কাজের তদন্ত করতে পারেন। জনগণকে সঠিক তথ্য সরবরাহ করেন। এর ফলে ক্ষমতাসীনদের জবাবদিহি নিশ্চিত হয়। তাঁরা জনগণের কাছে সত্য প্রকাশে বাধ্য হন।’

এদিকে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার জয় করায় দুই সাংবাদিককে অভিনন্দন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। স্থানীয় সময় শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বাক্স্বাধীনতা হুমকির মুখে রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে দুজন সাংবাদিকের নোবেল জয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

নরওয়ের রাজধানী অসলো থেকে গত শুক্রবার নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি শান্তিতে এবারের নোবেল পুরস্কার বিজয়ীর নাম ঘোষণা করে। মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে লড়াইয়ের স্বীকৃতি হিসেবে মারিয়া ও দিমিত্রিকে এবার শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়। ১৯৩৫ সালে জার্মান সাংবাদিক কার্ল ফন অসিয়েতস্কির পর এবারই প্রথম শান্তিতে নোবেল পেলেন কোনো সাংবাদিক।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন