বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইতালিয়ান মার্বেল পাথরের এই ভাস্কর্যের সৌন্দর্য সবার নজর কেড়েছিল। স্থানীয় লোকজনের মধ্যে এটি নিয়ে অনেক গালগল্প ছড়িয়েছিল। অনেকে বিশ্বাস করতেন, ভাস্কর্যটির চোখে মূল্যবান রুবি খোদাই করা রয়েছে। জেনির পরিবার জানায়, গত শতকের নব্বইয়ের দশকে কে বা কারা এই ভাস্কর্যের মাথা ভেঙে নিয়ে যায়। ওই সময় পুলিশের কাছে এই বিষয়ে জেনির পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ জানানো হয়েছিল। ভাস্কর্যটির চুরি হওয়া মাথার সন্ধান দিলে পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছিল। এরপরও সন্ধান পাওয়া যায়নি। পুরো ঘটনাটি রহস্য হিসেবে রয়ে যায়।

ওই সময় ব্যর্থ হলেও দুই দশকের বেশি সময় পরে এসে ভাস্কর্যটির চুরি হওয়া মাথার সন্ধান পাওয়া গেছে। এটাও কম রহস্যময় ঘটনা নয়। সম্প্রতি কে বা কারা কবরস্থানে জেনির কবরের ভাঙা ভাস্কর্যের পাশে চুরি হয়ে যাওয়া মাথা রেখে গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনা বেশ সাড়া ফেলেছে।

এখন নিরাপত্তার জন্য ফেরত পাওয়া ভাস্কর্যের মাথাটি জেনির আত্মীয় ক্যাথলিন ওয়ালেসের বাসায় রেখে এসেছে সমাধিস্থল কর্তৃপক্ষ। ক্যাথলিন বলেন, ভাস্কর্যটির ভাঙা মাথা যেমন রহস্যজনকভাবে হারিয়ে গিয়েছিল, ঠিক তেমনি রহস্যজনকভাবে সেটি ফেরত দেওয়া হয়েছে। তবে মাঝে পেরিয়ে গেছে দুই দশকের বেশি সময়।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন