default-image

সময় ব্যবস্থাপনায় জাপানিদের সুনাম রয়েছে। জাপানের সরকারি অফিসগুলোতে কর্মকর্তাদের অফিসে হাজির হওয়া ও বেরিয়ে যাওয়ার নির্ধারিত সময় কঠোরভাবে মেনে চলতে হয়। একটু এদিক–সেদিক হলেই কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিতে পিছপা হয় না।

সম্প্রতি এমনই ঘটনা ঘটেছে দেশটির একটি শিক্ষা বোর্ডের কর্মীদের ক্ষেত্রে। নির্ধারিত সময়ের দুই মিনিট আগে অফিস থেকে বের হওয়ার কারণে বেতন কাটার পাশাপাশি কঠোরভাবে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ। ১০ মার্চ জাপানের ওই শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, তাঁদের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাকে দুই মিনিট আগে অফিস ত্যাগ করায় শাস্তি দেওয়া হয়েছে। জাপান টুডের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

জাপানের ওই শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, তাঁদের সাতজন কর্মকর্তা ২০১৯ সালের মে মাস থেকে ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ৩১৬ বার আগেভাগেই অফিস ছেড়ে গেছেন। শুধু তা–ই নয়, ওই কর্মকর্তারা অফিস ছেড়েছেন বিকেল ৫টা ১৩ মিনিটে। কিন্তু তাঁরা বের হওয়ার সময় দেখিয়েছেন ৫টা ১৫ মিনিট। অর্থাৎ তাঁরা দুই মিনিট করে অফিস ফাঁকি দিয়েছেন। এ ঘটনার ব্যাখ্যা হিসেবে ওই কর্মকর্তারা বলেছেন, তাঁরা একটু তড়িঘড়ি করে দুই মিনিট আগেই বের হতেন। কারণ, তাঁরা ৫টা ১৭ মিনিটের বাস ধরার চেষ্টা করতেন। তাঁরা যদি ওই বাস ধরতে না পারতেন, তবে তাঁদের আধঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হতো। পরের বাসের সময় ৫টা বেজে ৪৭ মিনিট।

অফিসের হাজিরা ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন ৫৯ বছর বয়সী একজন নারী কর্মী। তাঁর বিরুদ্ধে এসব কর্মীকে আগেভাগেই কাজ থেকে বের হতে সাহায্য করার অভিযোগ আনা হয়। তিনি তাঁদের দুই মিনিট সময় বাড়িয়ে লেখার সুযোগ করে দিতেন। এ জন্য তাঁকেও কর্তৃপক্ষ শাস্তি দিয়েছে। শাস্তি হিসেবে তিনি তিন মাস ধরে এক–দশমাংশ কম বেতন পাবেন।

বিজ্ঞাপন

এর বাইরে আরও দুজন কর্মীকে লিখিতভাবে সতর্ক করা হয়েছে। চারজন কর্মীকে আগে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য কঠোরভাবে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

জাপানিরা সময়ানুবর্তিতার ক্ষেত্রে সব সময় জোর দিয়ে থাকে। এর আগে দেশটির জাতীয় রেল কর্তৃপক্ষ নির্ধারিত সময়ের কয়েক সেকেন্ড আগে ট্রেন ছেড়ে দেওয়ার জন্য আনুষ্ঠানিক ক্ষমা চেয়েছিল।

জাপান টাইমস বলছে, ওই ঘটনায় কর্মীদের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন জাপানের মানুষ। অনেকেই বলছেন, মিনিটের ভিত্তিতে কয়টি সংস্থা কর্মীদের বেতন দিয়ে থাকে? যদি তা হয়ে থাকে, তবে যে কর্মীরা এক মিনিট অতিরিক্ত সময় পরিশ্রম করেন, তাঁদের অবশ্যই তার পারিশ্রমিক দিতে হবে।

জাপানে সাধারণত কোনো সাক্ষাৎকারে ১০ মিনিট আগে উপস্থিত হতে না পারলে তা দেরি হিসেবে ধরে নেওয়া হয়। তাই অনেক কর্মী কর্তৃপক্ষের সুনজরে থাকতে আগেভাগেই অফিসে আসেন। তাই বলে তাঁরা আবার নির্ধারিত সময়ের আগেই বের হতে পারবেন, এমন কোনো নিয়ম নেই।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন