default-image

পাকিস্তান আগামী ছয় মাসের মধ্যে করোনার টিকা পাবে বলে আশা করছে। দেশটিতে সংক্রমণের হার ছয় সপ্তাহ পর ২ শতাংশ পার হয়েছে। সংক্রমণ বৃদ্ধি এই পরিস্থিতিতে দেশটি এই আশার কথা শুনিয়েছে। খবর ডনের।

পাকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক সূত্র উল্লেখ করে ডনের অনলাইনে বলা হয়, দেশটির ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্স টিকা পেতে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির সঙ্গে কথা বলছে। কিন্তু অক্সফোর্ড তাদের স্বত্ব ভারতের একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। ভারত গবেষণার কাজও করছে অক্সফোর্ডের সঙ্গে।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা বলেন, ‘ভারত বাইরে বিক্রির আগে তাদের দেশের জনগণের জন্য টিকা পাওয়া নিশ্চিত করবে। সৌভাগ্যবশত আমরা টিকা পেতে অনেক আগেই চীনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। আবার চীনের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল পাকিস্তানে করার জন্যও আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এসব আমাদের ভালো সিদ্ধান্ত ছিল।’

পাকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আশা করছে, আগামী ছয় মাসের মধ্যে তারা টিকা পাবে।

গতকাল রোববার পাকিস্তানের পরিকল্পনা, উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রী আসাদ উমর বলেন, ছয় সপ্তাহ ধরে শনাক্তের হার ২ শতাংশের নিচে ছিল। কিন্তু এখন এটি বেড়ে গেছে। আর এ জন্য করাচি, ইসলামাবাদ, জম্মু ও কাশ্মীরে (পাকিস্তান অংশে থাকা) মিনি স্মার্ট লকডাউন জারি করা হয়েছে। দেশের অন্য জেলাগুলোকে আগাম ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সের উপাচার্য জাভেদ আকরাম আগামী শীতে পাকিস্তানে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করেছেন। অধ্যাপক জাভেদ বলেন, শীতে ভাইরাস সংক্রমণ বাড়ে। পাকিস্তানের মতো উন্নয়নশীল দেশগুলোতে অনেক দরিদ্র মানুষ গরম কাপড়ের সংস্থান করতে পারে না। বেশি মানুষ এক ঘরে থাকার জন্য গ্রীষ্মের তুলনায় শীতে সংক্রমণ বেশি হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

মন্তব্য করুন