default-image

বিশ্বে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) টিকাদান গতকাল শনিবার পর্যন্ত ১০০ কোটি ছাড়িয়েছে। এই টিকাদানের অর্ধেকের বেশি হয়েছে মাত্র তিনটি দেশে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, শনিবার পর্যন্ত ২০৭টি দেশ ও অঞ্চলে ১০০ কোটি ২৯ লাখ ৩৮ হাজার ৫৪০ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান কার্যক্রম শুরুর ৫ মাসের কম সময়ের মধ্যে টিকাদান ১০০ কোটি ডোজের মাইলফলক ছাড়াল। শনিবার সারা বিশ্বে করোনা সংক্রমণ ৮ কোটি ৯৩ হাজার শনাক্তের দিন টিকাদান ওই মাইলফলক অতিক্রম করে।

বার্তা সংস্থা এএফপির তথ্যমতে, শনিবার পর্যন্ত ৩টি দেশে ৫৮ শতাংশ টিকা দেওয়া হয়েছে। দেশগুলোর মধ্যে সবার ওপরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে সাড়ে ২২ কোটির বেশি ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এরপরই রয়েছে চীন। দেশটিতে প্রায় ২১ কোটির বেশি ডোজ টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে। ভারতে দেওয়া হয়েছে প্রায় ১৪ কোটি।
তবে জনসংখ্যার অনুপাতে টিকাদানের ক্ষেত্রে সবার চেয়ে এগিয়ে ইসরায়েল। দেশটির প্রতি ১০ জনের প্রায় ৬ জনকে পূর্ণ ডোজের টিকা দেওয়া হয়েছে। এরপর রয়েছে আরব দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই)। দেশটির জনসংখ্যার ৫১ শতাংশের বেশি মানুষ অন্তত এক ডোজ করে টিকা নিয়েছেন। গত ৮ ডিসেম্বর বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে যুক্তরাজ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান শুরু হয়। এই দেশও টিকাদানে অনেক এগিয়ে। দেশটিতে জনসংখ্যার অনুপাতে ৪৯ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। আর যুক্তরাষ্ট্রে ৪২ শতাংশ, চিলিতে ৪১ শতাংশ, বাহরাইনে ৩৮ শতাংশ ও উরুগুয়েতে ৩২ শতাংশ মানুষ টিকা পেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোতে শনিবার পর্যন্ত ১২ কোটি ৮০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে, যা দেশগুলোর মোট জনসংখ্যার ২১ শতাংশ। জোটের ২৭টি দেশের মধ্যে জনসংখ্যার অনুপাতে সবচেয়ে বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে মাল্টায়, ৪৭ শতাংশ। এরপর হাঙ্গেরিতে ৩৭ শতাংশ, জার্মানিতে ২২ দশমিক ৬, স্পেনে ২২ দশমিক ৩, ফ্রান্সে ২০ দশমিক ৫ ও ইতালিতে ১৯ দশমিক ৯ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি ইতালি, স্পেন, ফ্রান্স ও জার্মানিতে করোনা সংক্রমণ বেশি। কিন্তু সেই তুলনায় টিকাদান কার্যক্রমে খুবই ধীরগতি। টিকা সরবরাহে দেরি হওয়ায় ইউরোপের বেশির ভাগ দেশে টিকাদানে গতি আসছে না।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোতে শনিবার পর্যন্ত ১২ কোটি ৮০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে, যা দেশগুলোর মোট জনসংখ্যার ২১ শতাংশ। জোটের ২৭টি দেশের মধ্যে জনসংখ্যার অনুপাতে সবচেয়ে বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে মাল্টায়, ৪৭ শতাংশ।

টিকাদান শুরু হওয়ার পর থেকে করোনার টিকাপ্রাপ্তিতে ধনী-গরিব দেশগুলোর মধ্যে বৈষম্যের কথা জোরালোভাবে আলোচিত হচ্ছে। সেই বৈষম্য কাটাতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভ্যাক্স কর্মসূচির মাধ্যমে গরিব ও উন্নয়নশীল দেশগুলোতে টিকা পৌঁছে দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করেছে। কিন্তু এরপরও সেই বৈষম্য প্রকট। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বেশির ভাগ টিকাই পাচ্ছে উচ্চ আয়ের দেশগুলো। এসব দেশে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১৬ শতাংশের বাস। কিন্তু এখন পর্যন্ত যত ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে, তার ৪৭ শতাংশ পেয়েছে এই উচ্চ আয়ের দেশগুলো।

default-image


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, এখনো ১২টির মতো দেশে টিকাদান শুরু হয়নি। এসব দেশের প্রতিটি অনুন্নত দেশ। এর সাতটি আবার আফ্রিকা মহাদেশের। বাকি তিনটি ওশেনিয়ার, একটি এশিয়ার (উত্তর কোরিয়া) ও একটি ক্যারিবীয় অঞ্চলের (হাইতি)।
টিকার চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সম্প্রতি ১০০টির বেশি দেশ টিকা তৈরির ফর্মুলা উন্মুক্ত করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। দেশগুলোর দাবি, তাদের নাগরিকদের টিকাদানের মাধ্যমে সুরক্ষিত রাখতে এটা খুবই জরুরি।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন