default-image

হাসপাতালের অক্সিজেন ট্যাংকে ছিদ্র হওয়ায় প্রায় ৩০ মিনিট নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহে বিঘ্ন ঘটেছিল। তাতেই ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২২ জন কোভিড–১৯ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের নাসিক শহরে এ ঘটনা ঘটেছে।


এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাসিকের জাকির হুসেইন মিউনিসিপাল হাসপাতালে প্রাণহানির এই ঘটনা ঘটেছে। যাঁরা মারা গেছেন, তাঁরা সবাই ভেন্টিলেশনে ছিলেন। প্রত্যেকেরই নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন প্রয়োজন ছিল।


কোভিড রোগীদের চিকিৎসায় নির্ধারিত এই হাসপাতালে দেড় শর মতো রোগী ভেন্টিলেশনে ছিলেন বা অক্সিজেন নিচ্ছিলেন। জেলা কালেক্টর সুরাজ মান্ধারে জানান, হাসপাতালের বাইরে অক্সিজেন ট্যাংকারে ছিদ্র হওয়ায় সরবরাহ প্রায় ৩০ মিনিটের জন্য বিঘ্নিত হয়। তাতেই প্রাণ হারান ২২ রোগী।

বিজ্ঞাপন


ভিডিওতে দেখা যায়, হাসপাতালের বাইরে থাকা একটি অক্সিজেন ট্যাংক থেকে গ্যাস বেরোচ্ছে। সাদা ধোঁয়ায় আশপাশের পুরো এলাকা দ্রুত ছেয়ে যাচ্ছে।
ঘটনার পরপরই জরুরি ভিত্তিতে অক্সিজেন প্রয়োজন এমন ৩১ জন রোগীকে অন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
এ ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে জানিয়েছেন।


তিনি বলেন, হাসপাতালের অক্সিজেন ট্যাংকে ছিদ্র পাওয়া গেছে। ওই ট্যাংক থেকেই রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছিল।
মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের দপ্তর থেকে এ ঘটনায় নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৫ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। টুইটারে শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন