বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইএটিএ) থেকে পাওয়া তথ্যর ভিত্তিতে হেনলি ২০০৬ সাল থেকে তিন মাস অন্তর এ পাসপোর্ট সূচক প্রকাশ করে আসছে। কোনো দেশের পাসপোর্ট দিয়ে আগাম ভিসা ছাড়া কত দেশে যাওয়া যায়, মূলত তার ওপর ভিত্তি করেই শক্তিশালী পাসপোর্ট নির্ধারণ করা হয়।

হেনলির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগে থেকে ধনী ও দরিদ্র দেশগুলোর মধ্যে এ বৈষম্য ছিল। এর মধ্যে আসে কোভিড মহামারি। এতে নতুন করে ভ্রমণের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। এ ছাড়া উত্তর আর দক্ষিণের মধ্যে ব্যবধান আরও বেড়ে সূচকের ১৬ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ব্যবধান তৈরি করেছে।

সূচকের শীর্ষে থাকা জাপান ও সিঙ্গাপুরের পাসপোর্টে আগাম ভিসা ছাড়া ১৯২ দেশে যাওয়া যায়। জার্মানি ও দক্ষিণ কোরিয়ার পাসপোর্ট দিয়ে যাওয়া যায় ১৯০টি দেশে। অপর দিকে ১৯৯টি দেশকে নিয়ে তৈরি সূচকের সর্বনিম্ন অবস্থানে থাকা আফগানিস্তানের পাসপোর্ট দিয়ে আগাম ভিসা ছাড়া মাত্র ২৬টি দেশে যাওয়া যায়।

পাসপোর্টের শক্তি বিবেচনায় সেরা দশে ইউরোপের জয়জয়কার। ফিনল্যান্ড, ইতালি, লুক্সেমবার্গ ও স্পেন রয়েছে তালিকার তৃতীয় স্থানে। এসব দেশের পাসপোর্ট দিয়ে আগাম ভিসা ছাড়া ১৮৯টি দেশে যাওয়া যায়। চতুর্থ অবস্থানে থাকা অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস ও সুইডেনের পাসপোর্টে যাওয়া যায় ১৮৮টি দেশে।

পঞ্চম স্থানে রয়েছে আয়ারল্যান্ড ও পর্তুগাল। এই দুই দেশের পাসপোর্ট দিয়ে আগাম ভিসা ছাড়াই ১৮৭টি দেশে যাওয়া যায়। সূচকে ১৮৬ স্কোর নিয়ে ষষ্ঠ অবস্থানে বেলজিয়াম, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র। অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, চেক রিপাবলিক, গ্রিস, মাল্টা ১৮৫ স্কোর নিয়ে রয়েছে সপ্তম অবস্থানে।

পোল্যান্ড ও হাঙ্গেরি রয়েছে অষ্টম স্থানে। এসব দেশের পাসপোর্টধারী ব্যক্তিরা আগাম ভিসা ছাড়া ১৮৩টি দেশে যেতে পারেন।লিথুয়ানিয়া ও স্লোভাকিয়ার অবস্থান নবম। তাদের স্কোর ১৮২। আর ১৮১টি দেশে আগাম ভিসা ছাড়া যাওয়ার সুবিধা নিয়ে সূচকে দশম অবস্থানে রয়েছে এস্তোনিয়া, লাটভিয়া ও স্লোভেনিয়া।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন