default-image

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকেরা। রোগীদের বাঁচাতে গিয়ে নিজেরাও আক্রান্ত হচ্ছেন। এরই মধ্যে পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হয়েছে কয়েক শ চিকিৎসককে। তাঁদেরই একজন ভারতের মনীষা যাদব।

৫১ বছর বয়সী এই চিকিৎসক রোববার ফেসবুকে পোস্ট দেন, ‘সম্ভবত এটা আমার জীবনের শেষ সকাল। আমি হয়তো আর সেবা দিতে পারব না। সবাই নিজের যত্ন নেবেন। শরীর মরে যায়। আত্মা মরে না। আত্মা অমর।’ এই স্ট্যাটাস দেওয়ার ৩৬ ঘণ্টা পরেই সোমবার মধ্যরাতে করোনায় মারা যান মনীষা। যক্ষ্মা বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক মুম্বাইয়ের সেউরি টিবি হাসপাতালে প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, মনীষার স্ট্যাটাসটি নিজেদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করেছেন অনেক চিকিৎসক। তাদের কষ্টের কথা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে অন্যদের সতর্কতা মেনে চলতেও পরামর্শ দিয়েছেন।

এই ঘটনার পর তৃপ্তি গিলাদা নামের আরেক চিকিৎসকের ভিডিও এখন ভাইরাল। ভারতের ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে তিনি মানসিকভাবে বিধ্বস্ত। ভিডিওতে তিনি বলেছেন, ‘আমরা অসহায়...এ পরিস্থিতি আগে কখনো দেখিনি... লোকজন খুব আতঙ্কিত...’। কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দিতে যাওয়ার পথে গাড়িতে তিনি বলেন, ‘আমার মন ভেঙে গেছে। আমার যে কী উদ্বেগের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি, তা যদি বলতে পারতাম...আমি যদি আপনাদের বোঝাতে পারতাম...।’

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ৯৫ হাজার ৪১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ভারতে এক দিনে এত সংখ্যক করোনা রোগী আগে কখনো শনাক্ত হয়নি। এই ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় মৃত্যুর ক্ষেত্রেও রেকর্ড হয়েছে। এক দিনে রেকর্ডসংখ্যক ২ হাজার ২৩ জন করোনায় মারা গেছেন। এর আগে ভারতে গত বছরের ১৬ জুন এক দিনে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

ভারতের সরকারি তথ্যমতে, দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার ১৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত ভারতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৫৩ জন।

বিজ্ঞাপন
বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন