সিডনিতে বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না আসায় সিডনিতে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।ছবি: রয়টার্স

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস প্রদেশের সিডনি শহরে চলছে লকডাউন। এবার শহরটিতে চলমান লকডাউনের মেয়াদ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, ২৬ জুন শহরটিতে ‘বাড়িতে অবস্থান করার’ আদেশ জারি করা হয়। কিন্তু জরুরি কাজে বাড়ির বাইরে বের হন অনেকেই। এর জেরে কিছু লোক আক্রান্ত  হওয়ায় আবারও সংক্রমণের ঘটনা ঘটে। ফলে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় নিউ সাউথ ওয়েলস প্রশাসন। চলতি বছরে সিডনিতে ৩৩০ জন আক্রান্ত হয়েছেন, যা শহরটিতে সংক্রমণের সবচেয়ে বড় ঘটনা।

নিউ সাউথ ওয়েলস প্রদেশের সিডনি, ইউলংগং ও সেন্ট্রাল কোস্ট এলাকায় আগামী শুক্রবার বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার কথা ছিল। বর্তমানে এই অঞ্চলের ৫০ লাখের বেশি বাসিন্দা ‘বাড়িতে অবস্থান করার’ আদেশের আওতায় আছে। তবে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে না আসায় বিধিনিষেধ ১৬ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এ সময় এক সপ্তাহ স্কুলগুলোও বন্ধ থাকবে।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, বুধবার নতুন করে ২৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। দৈনিক শনাক্ত ও টিকাদানের পরিমাণ কমে যাওয়ায় অর্থ এটাই যে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও বাড়ানো লাগতে পারে।

এখন পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার ১০ শতাংশের কম নাগরিক টিকা পেয়েছেন। ফাইজারের টিকাসহ অন্য টিকাগুলোর সরবরাহে ঘাটতি থাকায় দেশটির অনেকেই চলতি বছরের শেষ মাসগুলোর আগে টিকা পাবেন না বলে ধরা হচ্ছে।

বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের মতো অস্ট্রেলিয়াজুড়েও ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাসের ডেলটা ভেরিয়েন্ট। ডেলটা ধরন ছড়িয়ে পড়ার পর সংক্রমণের সবচেয়ে বড় ঝাপটা গেছে সিডনির ওপর দিয়েই। ওয়ার্ল্ডোমিটারসের দেওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ায় এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ হাজার ৮৬১ জন এবং মারা গেছেন ৯১০ জন।

এদিকে ডেলটা ধরন ছড়িয়ে পড়ার পর করোনাভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ দেখছে ইন্দোনেশিয়াও। পরিস্থিতি সামাল দিতে চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ ২০ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। নতুনভাবে বাড়ানো বিধিনিষেধের আওতায় পড়বে পশ্চিমের সুমাত্রা দ্বীপসহ বেশ কয়েকটি শহর। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ লাখ ৪৫ হাজার ১৮ জন। আর আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬১ হাজার ৮৬৮ জন।