সিরিয়ায় ড্রোন হামলায় তিউনিসিয়ার শীর্ষ জঙ্গি নিহত

বিজ্ঞাপন
default-image

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ড্রোন (চালকবিহীন বিমান) হামলায় তিউনিসিয়ার একজন শীর্ষস্থানীয় জঙ্গি নিহত হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র এ ড্রোন হামলা চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সিরীয় যুদ্ধ পর্যবেক্ষণকারী একটি সংস্থার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি মঙ্গলবার এ খবর দিয়েছে।

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস নামের সংস্থাটি বলছে, বিদ্রোহীদের দখলে থাকা ইদলিব প্রদেশে সোমবার এ ড্রোন হামলা চালানো হয়। হামলায় সাইয়াফ আল-তুনসি নামের ওই জঙ্গি নিহত হয়েছেন। অবজারভেটরির প্রধান রামি আবদেল রহমান বলেন, হুররাস আল-দীন নামের একটি সংগঠনের নেতা সাইয়াফ আল-তুনসি। ইদলিবে তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এতে তিনি নিহত হন।

সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদার অনুগত অনেকগুলো সংগঠন রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে তুলনামূলক ছোট কিন্তু খুবই প্রভাবশালী একটি সংগঠন হুররাস আল-দীন। সংগঠনটি সিরিয়ায় হায়াত তাহরির আল-শামসের প্রতিদ্বন্দ্বী। আল-শামস হচ্ছে জঙ্গি মতাদর্শের বেশ কয়েকটি উপগোষ্ঠীর একটি জোট। এই জোটের বেশির ভাগ অনুসারীই আল-কায়েদার সাবেক সিরীয় শাখা জাবাত আল-নুসরার সাবেক সদস্য। একটা সময়ে হুররাস আল-দীন ও হায়াত তাহরির আল-শামসের মধ্যে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক ছিল।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাইয়াফ আল-তুনসিও আল-নুসরার সাবেক নেতা। ২০১৫ সালে ইদলিব প্রদেশের দ্রুজ এলাকার ২০ জনকে হত্যায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ ওঠার পর তিনি আল-নুসরায় নিজের অবস্থান হারান। সাইয়াফ তিউনিসিয়ার নাগরিক। যে ড্রোন হামলায় তিনি নিহত হয়েছেন, সেটির বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি যুক্তরাষ্ট্র। এ অঞ্চলে জঙ্গিবাদ নির্মূলে দেশটির নেতৃত্বাধীন যে জোট রয়েছে, তারাও বিষয়টি নিশ্চিত করেনি।

তবে অবজারভেটরির নেতা রামি আবদেল রহমান বলেছেন, সাইয়াফ আল-তুনসির গাড়িটা ঘায়েল হয়েছে ‘নিনজা’ আর৯এক্স নামে পরিচিত এক ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে। এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের মাথায় বিস্ফোরকের পরিবর্তে অনেকগুলো ব্লেড ব্যবহার করা হয়, যা ‘সমান্তরাল ক্ষতি’ কমিয়ে আনে। উত্তর সিরিয়ায় জঙ্গিদের বিরুদ্ধে বিমান হামলায় এর আগেও আর৯এক্স ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন