default-image

সুস্থ আছেন অং সান সু চি। মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের পর আটক সু চির শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবীরা। এই নেত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর  এক বিবৃতিতে তাঁর সুস্থতার বিষয়টি জানান আইনজীবীরা।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান হয়। এর পর পরই আটক হন সু চি (৭৫)। তাঁকে কোথায় রাখা হয়েছে, সেটা স্পষ্ট নয়। জান্তা সরকার অজ্ঞাত স্থান থেকেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সু চিকে আদালতের কার্যক্রমে যুক্ত করে। তবে সাধারণের সঙ্গে আলাপ কিংবা নিজের অবস্থা সম্পর্কে জানানোর সুযোগ নেই তাতে।

বিজ্ঞাপন

জান্তা সরকার সু চির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা করেছে। অভিযোগের তালিকায় অবৈধ উপায়ে ওয়াকিটকি আমদানি ও ব্যবহার, ঘুষ হিসেবে সোনা ও অর্থ গ্রহণসহ আরও নানা বিষয় রয়েছে। এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব অভিযোগ নিয়ে বৃহস্পতিবার আবারও আদালতের মুখোমুখি হবেন সু চি। তার আগে বুধবার আইনজীবীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে পরামর্শ করেন তিনি।

বৈঠক শেষে সু চির আইনজীবী মিন মিন সোয়ে জানান, তিনি (সু চি) সুস্থ আছেন।

ভিডিওকলে তাঁকে সুস্থ মনে হয়েছে। তাঁর পরামর্শগুলো নোট করেছেন আইনজীবীরা।

আইনজীবীদের সঙ্গে সু চির এই বৈঠকের পুরোটাই জান্তা পুলিশ নজরদারি করেছে।
তবে সু চি তার আইনজীবীদের সঙ্গে সরাসরি দেখা করতে চাইছেন। কিন্তু সেনাবাহিনী তাঁকে সেই ‍অনুমতি দেয়নি। পুলিশের উপস্থিতিতে সু চি তাঁর আইনজীবীদের সঙ্গে ভিডিও কলে বিস্তারিত আলোচনা করতে রাজি নন বলেও জানান আইনজীবী সোয়ে।

আটক হওয়ার সময় মিয়ানমারবাসীকে রাজপথে নেমে অভ্যুত্থানের বিরোধিতা করার আহ্বান জানিয়েছিলেন সু চি। তাঁর ডাকেই মিয়ানমারের রাজপথ প্রায় দুই মাস ধরে বিক্ষোভে উত্তাল রয়েছে। বিক্ষোভকারীদের দাবি- সেনাশাসন প্রত্যাহার ও সু চির মুক্তি।

চলমান বিক্ষোভে জান্তা সেনা-পুলিশের গুলিতে এরই মধ্যে ৫২০ জনের বেশি নিহত হয়েছেন। আটক হয়েছেন তিন সহস্রাধিক।

বিজ্ঞাপন
বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন