বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এক বিবৃতিতে ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের কাছে অনলাইনে অপছন্দের শব্দ ও বাক্যাংশ চাওয়া হয়েছিল। এতে সাড়া দিয়ে নরওয়ে, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য, স্কটল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশ থেকে জমা পড়ে ইংরেজি ভাষার ১ হাজার ২৫০টির বেশি শব্দ ও বাক্যাংশ। সেখান থেকে শীর্ষ ১০টি বাছাই করা হয়। এই তালিকায় ‘ওয়েট, হোয়াট?’ শব্দযুগল সবার ওপরে রয়েছে। এটি নিয়ে একজন আপত্তি তুলে বলেছেন, ‘আমি আর অপেক্ষা করতে চাই না।’

শীর্ষ দশের তালিকায় আরও রয়েছে ‘নো ওরিস’, ‘অ্যাট দি এন্ড অব দ্য ডে’, ‘দ্যাট বিয়িং সেইড’, ‘আসকিং ফর আ ফ্রেন্ড’, ‘সার্কেল ব্যাক’, ‘ডিপ ডাইভ’, ‘নিউ নরমাল’, ‘ইউ আর অন মিউট’, ‘সাপ্লাই চেইন’ শব্দ ও বাক্যাংশ। ব্যবহারকারীরা বলেছেন, গত বছরে এসব শব্দ ও বাক্যাংশ তাঁরা এত বেশি ব্যবহার করেছেন যে এখন আর পছন্দ করছেন না। ২০২২ সালে তাঁরা এসব ব্যবহার করতে চান না।

বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রেসিডেন্ট রডনি এস হানলে এক বিবৃতিতে বলেন, ‘নিত্যদিনের কথোপকথনে আপনি যেটা বোঝাতে চান, সেই অনুযায়ী শব্দ ও বাক্যাংশ ব্যবহার করেন। এর সহজ কিংবা কঠিন কোনো বিকল্প নেই। এরপরও এমন কিছু শব্দ ও বাক্যাংশ রয়েছে, যেগুলোর বারবার ব্যবহারে বিরক্ত হয়ে যান অনেকেই। বিরক্তির জেরে পড়ে সেসব শব্দ ও বাক্যাংশ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন মানুষ।’

গত বছরের পুরোটাই বিশ্ববাসী করোনা মহামারির বিরুদ্ধে লড়েছে। তাই অপছন্দ করার ক্ষেত্রে মহামারিসংক্রান্ত কয়েকটি শব্দ ও বাক্যাংশ তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। নতুন স্বাভাবিক বা নিউ নরমাল, সাপ্লাই চেইনের মতো শব্দ ও বাক্যাংশ মহামারির বছরে অনলাইনে–অফলাইনে বারবার ব্যবহার করতে হয়েছে। তাই এখন আর এসব মানুষ পছন্দ করছে না।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন