বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিচিত্র এই ঘটনার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার সংবাদমাধ্যম ইউনাইটেড প্রেস ইন্টারন্যাশনাল গত শনিবার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়, ৩৮ বছর আগে হারিয়ে গিয়েছিল গুস আলব্রিটনের তিনটি পার্পেল হার্ট পদকের একটি। তখন তিনি ফ্লোরিডায় বসবাস করতেন। এখন গুস আলব্রিটন জর্জিয়ার ডাবলিনে বসবাস করছেন।

সংবাদমাধ্যমকে গুস আলব্রিটন বলেন, ‘ওই সময় আমার বাড়িতে চুরি হয়েছিল। বড় আকারের একটি পানির বোতলে আমি অর্থ, দামি অলংকারের সঙ্গে পার্পেল হার্টের পদকটি রেখেছিলাম। চোর ওই বোতলসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। তখন থেকে সেটির খোঁজ ছিল না।’

পদক চুরির ঘটনা পুলিশকে জানিয়েছিলেন গুস আলব্রিটন। তবে সেটির খোঁজ পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন। চলতি বছর হঠাৎ করেই হারানো সেই পদক ফিরে পেয়েছেন তিনি। জেমি বাথ নামের একজন তাঁকে ফোন করে জানান, হারিয়ে যাওয়া ওই পদক তাঁর কাছে আছে। পরে ডাকযোগে পদকটি ফেরত পাঠান জেমি।

দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত জেমি ও তাঁর স্ত্রী ফ্লোরিডার ব্রুকসভিলে থাকেন। সেখানে পুরোনো জিনিসপত্র বেচাকেনার জায়গায় তাঁরা পার্পেল হার্ট পদকটি দেখতে পান। সেটির দাম ধরা হয়েছিল দুই ডলার। সেখান থেকে পদকটি কিনে নেন জেমি। এরপর সেটির প্রকৃত মালিককে খুঁজে তা ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ নেন। সেই সূত্রে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ঘেঁটে গুস আলব্রিটনের সন্ধান পেয়ে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেন জেমি।

প্রায় চার দশক পর হারানো পদক ফিরে পেয়ে ভীষণ খুশি গুস আলব্রিটন। তিনি বলেন, মাঝে অনেকটা সময় পেরিয়ে গেছে ঠিকই, তবে হারানো পদক ফিরে পাওয়ার ঘটনাটি অনন্য।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন