default-image

৫৫ বছরের নিচে যাঁদের বয়স, তাঁদের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার ব্যবহার স্থগিত করার সুপারিশ করেছেন কানাডার বিশেষজ্ঞরা। স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার তাঁরা এ সুপারিশ করেন। খবর এএফপি ও সিএনএনের।

ম্যানিটোবা ও কুইবেক প্রদেশে কানাডার ন্যাশনাল অ্যাডভাইজারি কমিটি অন ইমিউনাইজেশন অ্যান্ড হেলথের নির্দেশনা মেনে চলার ব্যাপারে সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

কানাডার উপপ্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা হাওয়ার্ড এনজু এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, ‘৫৫ বছরের নিচে যাঁদের বয়স, তাঁদের ক্ষেত্রে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার কার্যকারিতা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। আপাতত এই বয়সীদের ওপর অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রয়োগ আমরা স্থগিত করছি।’

তবে হেলথ কানাডার প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা সুপ্রিয় শর্মা বলেন, কানাডায় অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নেওয়ার পর কারও শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার মতো কোনো ঘটনা ঘটেনি।

বিজ্ঞাপন

এনএসিআই এ মাসের শুরুতে ১৮ থেকে ৬৪ বছর বয়সীদের ওপর অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রয়োগের আহ্বান জানায়।

কানাডায় গত ফেব্রুয়ারি মাসে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রয়োগের অনুমতি পায়। দেশটিতে জনসন অ্যান্ড জনসন, ফাইজার–বায়োএনটেক ও মর্ডানার টিকা প্রয়োগেরও অনুমোদন রয়েছে।

শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার আশঙ্কায় সম্প্রতি বেশ কিছু দেশ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাদান স্থগিত করে। তবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউরোপীয় ওষুধ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ও যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা জানায়, এই টিকা নিরাপদ ও কার্যকর। এই টিকার প্রয়োগ বন্ধ না করে তা চালিয়ে যাওয়া উচিত। পরে বিভিন্ন দেশে আবার এই টিকার প্রয়োগ শুরু করে।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির সঙ্গে যৌথভাবে টিকাটি উদ্ভাবন করেছে যুক্তরাজ্য-সুইডেনভিত্তিক ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাস্ট্রাজেনেকা।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন