default-image

আফ্রিকায় কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যুর হার গত মাসের তুলনায় এ মাসে ৪০ শতাংশ বেড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। শিগগিরই এ মহাদেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়ে যাবে।

কঙ্গোর রাজধানী ব্রাজাভিলভিত্তিক ডব্লিউএইচও আফ্রিকা অফিস জানিয়েছে, গত ২৮ দিনে করোনায় সংক্রমিত হয়ে আফ্রিকায় ২২ হাজার ৩০০ জন মারা গেছেন। এর আগের ২৮ দিনে মারা গিয়েছিলেন ১৬ হাজার জন।

ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলন শেষে জাতিসংঘের এই সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়, আফ্রিকায় নতুন ও আরও সংক্রামক করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে বড় আকারের টিকাদান কর্মসূচি চালানোর মধ্যেই এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আফ্রিকায় প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এখন পর্যন্ত সেখানে ৩৭ লাখ মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং ৯৬ হাজার মানুষ মারা গেছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আগামী দিনগুলোতে এই মহাদেশে মৃতের সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়ে যাবে।

ডব্লিউএইচও আফ্রিকার পরিচালক মাতসিদিসো মোয়েতি তাঁর বিবৃতিতে বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণে মৃত্যুহার বৃদ্ধির বিষয়টি দুঃখজনক। এ ছাড়া আফ্রিকায় স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বাস্থ্যব্যবস্থার ওপর মারাত্মক চাপের বিষয়টি উদ্বেগজনক সতর্কবার্তা।

আফ্রিকায় করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়বে, এমন আশঙ্কার পরও সেখানে মহামারির প্রাথমিক পর্যায়ে তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে ছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, প্রথম ঢেউয়ের তুলনায় করোনায় দ্বিতীয় ঢেউয়ে আফ্রিকায় সংক্রমণের সংখ্যা যতটা আশঙ্কা করা হয়েছিল তা অতিক্রম করেছে। স্বাস্থ্যব্যবস্থা হকচকিয়ে গেছে।

আফ্রিকা মহাদেশের কিছু অঞ্চলে টিকাদান কর্মসূচির বিষয়টি এখনো উদ্বেগজনক অবস্থায় রয়েছে। মোয়েতি আফ্রিকার সব নাগরিককে টিকা সহজলভ্য হলে তা গ্রহণ করতে আহ্বান জানিয়েছেন।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন