default-image

হাজার বছর আগের শাসকেরা আবার নেমে আসছেন মিসরের রাস্তায়। তবে রক্ত-মাংসে নয়, মমি হয়ে। ২২টি মমি নিয়ে এবার শোভাযাত্রা হবে কায়রোর রাস্তায়। আর এতে খরচ হচ্ছে কয়েক মিলিয়ন ডলার।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, মোট ১৮ জন রাজা ও ৪ জন রানির মমি এই শোভাযাত্রায় অংশ নেবে। এই মমিগুলোর এত দিনের বাসস্থান এবার পরিবর্তিত হচ্ছে। নতুন জাদুঘর তৈরি হয়েছে ৫ কিলোমিটার দূরে। সেখানেই নেওয়া হবে এই ২২টি মমি। আর তার জন্যই করতে হচ্ছে শোভাযাত্রা।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, মমিদের এই শোভাযাত্রা উপলক্ষে নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা। মিসরে এই মমিগুলোকে জাতীয় সম্পদ হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। বলা হচ্ছে, শোভাযাত্রায় শাসনকালের ক্রম অনুযায়ী শাসকদের মমি নিয়ে যাওয়া হবে। নতুন জাদুঘরের নাম হলো ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব ইজিপশিয়ান সিভিলাইজেশন।

বিজ্ঞাপন

মমিগুলোর মধ্যে রাজা দ্বিতীয় রামসেসের মমিও রয়েছে। আয়োজকেরা বলছেন, দ্বিতীয় রামসেসের মমি নিয়েই সাধারণের মধ্যে আগ্রহ বেশি থাকবে। প্রায় ৬৭ বছর শাসন করেছেন এই রাজা।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, প্রতিটি মমিকে নেওয়া হবে সাজানোগোছানো যানে। যাত্রাপথে মমিগুলো যাতে ঝাঁকুনি না খায়, সে জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মমি বহনকারী গাড়িগুলো ঘিরে থাকবে আরও মোটরগাড়ি। থাকবে ঘোড়ায় টানা রথের রেপ্লিকা।

কায়রোর আমেরিকান ইউনিভার্সিটির ইজিপ্টোলজির অধ্যাপক সালিমা ইকরাম বলেছেন, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। এই মমিগুলো ১৮৮১ থেকে ১৮৯৮ সালের মধ্যে আবিষ্কৃত হয়েছিল।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন