কুয়ায় ১৩টি রহস্যজনক কফিন

বিজ্ঞাপন
default-image

মিসরে একটি কুয়ার ভেতর রহস্যজনক ১৩টি কফিনের সন্ধান মিলেছে। কফিনগুলোয় আড়াই হাজার বছরের বেশি পুরোনো মমি করা মানবদেহ রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মিসরের পর্যটন ও পুরাকীর্তি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সিএনএন জানায়, প্রায় ৪০ ফুট গভীর কূপটিতে আবদ্ধ কফিনগুলো একটার ওপর একটা সাজানো অবস্থায় পাওয়া যায়। কফিনগুলো এত যত্নের সঙ্গে সংরক্ষণ করা যে এর আদি নকশা ও রং এখনো স্পষ্টভাবে দৃশ্যমান।

রাজধানী কায়রো থেকে প্রায় ২০ মাইল দক্ষিণে সাক্কারা এলাকার একটি পুরোনো স্থাপনায় পুরাতাত্ত্বিকেরা মমিগুলোর সন্ধান পান। ঐতিহাসিক স্টেপ পিরামিডও এখানেই অবস্থিত। এটি বিশ্বের সবচেয়ে পুরোনো পিরামিড বলে ধারণা করা হয়। এ এলাকায় আগামী দিনগুলোয় আরও পুরাকীর্তির সন্ধান পাওয়ার আশা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মিসরের পর্যটন ও পুরাকীর্তি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী খালেদ এল-এনামি এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, একটি নতুন পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন আবিষ্কারের সময় সাক্ষী হিসেবে থাকা একটি অতুলনীয় মুহূর্ত।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত মার্চ মাস থেকে মিসরের পুরাতাত্ত্বিক স্থান ও যাদুঘরগুলো বন্ধ ছিল। মোটে এক সপ্তাহ আগে সেগুলো পুনরায় খুলে দেওয়া হয়েছে। আর এর মধ্যেই আবিষ্কৃত হলো নতুন মমি।

মিসরের অর্থনীতিতে পর্যটনের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গত বছর ১ কোটি ৩৬ লাখ পর্যটক দেশটিতে এসেছিলেন। এই খাতের সঙ্গে মিসরের প্রায় ১০ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান জড়িত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন