default-image

ইথিওপিয়ার সেনাবাহিনী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান তেদরোস গেব্রেয়াসুস আধানোমের বিরুদ্ধে তাইগ্রের রাজনৈতিক দলকে যুদ্ধাস্ত্র ও কূটনৈতিক সাহায্য করার অভিযোগ এনেছে। তাইগ্রের রাজনৈতিক দল তাইগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্টের (টিপিএলএফ) সেনারা দেশটির কেন্দ্রীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করছে।

টেলিভিশনে দেওয়া বিবৃতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল বিরহানু জুলা বলেছেন, তেদরোস নিজেও এই গোষ্ঠীর সদস্য এবং তিনি অপরাধী। অবশ্য নিজের দাবির পক্ষে কোনো প্রমাণ দেননি জুলা।
অবশ্য গতকাল সন্ধ্যায় এক টুইট করে তেদরোস নিজের দেশ ইথিওপিয়ায় তাইগ্রে ও ইথিওপিয়ার সরকারের মধ্যকার সংঘর্ষে কোনো পক্ষ নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি এ সময় দলকে শান্তি ও জনগণের নিরাপত্তার জন্য কাজ করতে বলেন।

বিজ্ঞাপন

তাইগ্রে জাতিভুক্ত তেদরোস (৫৫) বলেন, ‘আমি এ সময় পক্ষ নিচ্ছি এমন অভিযোগ উঠছে। কিন্তু তা সত্য নয়। বলতে চাই, আমি শুধু একটি পক্ষে আর তা হচ্ছে শান্তি।’
জেনেভায় পশ্চিমা কূটনীতিকেরা বলছেন, এসব অভিযোগের পক্ষে প্রমাণ নেই। তাই তেদরোসের ভূমিকা নিয়ে জানতে চাওয়ারও কোনো বিষয় নেই।

গতকাল বৃহস্পতিবারের এক সভা শেষে যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রদূত জুলিয়ান ব্রাথওয়েট তেদরোস ও তাঁর নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন। ওই সভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও গ্যাভি ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের নেতৃত্বে কোভিড-১৯ টিকা বিতরণ, কোভিড চিকিৎসা ও দরিদ্র দেশগুলোতে করোনা পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা হয়।

তেদরোস টিপিএলএফের নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের ইথিওপিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে ২০০৫ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছেন। দলটি কয়েক দশক ধরে ইথিওপিয়ায় প্রভাবশালী হিসেবে জোট সরকার গঠন করে শাসন করে। ২০১৮ সালে আবি আহমেদ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বে আসার পর চিত্র বদলে গেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আবি আহমেদ ক্ষমতায় আসার পর আফ্রিকার এই দেশে রাজনৈতিক অবস্থার আমূল পরিবর্তন শুরু করেন। প্রতিবেশী ইরিত্রিয়ার সঙ্গে দুই দশক ধরে চলা রক্তক্ষয়ী সংঘাতের অবসান ঘটে তাঁরই সময়ে। ফলে ক্ষমতায় আসার মাত্র এক বছরের মাথায় নোবেল শান্তি পুরস্কার পান আবি।

প্রতিবেশীর সঙ্গে সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় আবি আহমেদ প্রশংসিত হলেও নিজ দেশের উত্তেজনাপূর্ণ অঞ্চল তাইগ্রেতে শান্তি ফেরাতে তেমন পদক্ষেপ নেননি বলে অভিযোগ। উল্টো ব্যাপক রাজনৈতিক সংস্কারের নামে তাইগ্রের অধিবাসীদের কোণঠাসা করে ফেলেন বলে অভিযোগ ওঠে আবির বিরুদ্ধে।

এই ঘটনা ইথিওপিয়ার রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে প্রভাব বজায় রাখা তাইগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্ট পার্টির সঙ্গে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের বিরোধ উসকে দেয়। শুরু হয় টিপিএলএফের বাহিনীর সঙ্গে ইথিওপিয়া কেন্দ্রীয় বাহিনীর রক্তক্ষয়ী সংঘাত।
করোনাভাইরাস সংকটের কারণে গত জুন মাসের জাতীয় নির্বাচন বন্ধ রাখেন আবি। এরপর থেকে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল বিরহানু অভিযোগ করেছেন, তেদরোস তাঁর আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে কূটনৈতিক সমর্থন ও টিপিএলএফের জন্য অস্ত্র জোগাড় করছেন।

২০১৭ সালে তেদরোস বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক নিয়োগ পান। বৈশ্বিক স্বাস্থ্য খাতের এ প্ল্যাটফর্মটির প্রধান আফ্রিকান মহাপরিচালক তিনি।

এ বছরের শুরুর দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তেদরোসের বিরুদ্ধে করোনাভাইরাস নিয়ে চীনের ওপর চাপ প্রয়োগ না করার অভিযোগ আনেন। তিনি জুলাই মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ছাড়ার ঘোষণা দেন।

মন্তব্য পড়ুন 0