default-image

করোনাভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকার ধরনের মতো অনুরূপ ধরন এবার শনাক্ত হয়েছে ব্রাজিলে। দেশটির সাও পাওলোর বুটানটান ইনস্টিটিউটের প্রধান গতকাল বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আমেরিকার বৃহত্তম দেশ ব্রাজিলে গতকাল করোনায় সর্বোচ্চ দৈনিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এমন পরিস্থিতিতেই বুটানটান ইনস্টিটিউটের প্রধান দিমাস কোভাস বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনার ধরনের অনুরূপ ধরন দেশটিতে শনাক্ত হয়েছে। তবে যেসব রোগীর দেহে করোনার এই ধরন পাওয়া গেছে, তাঁরা কখনোই দক্ষিণ আফ্রিকায় যাননি। এই ধরন নিয়ে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মধ্যে শঙ্কা আছে। কারণ, ওই ধরনে করোনার বর্তমান টিকাগুলো আদৌ কার্যকর কি না, তা নিয়ে সংশয় আছে।

অবশ্য ব্রাজিলেই করোনাভাইরাসের একটি পৃথক ধরন পাওয়া গেছে। এটির নাম দেওয়া হয়েছে পি১। দিমাস কোভাস বলেন, এই ধরন দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম পাওয়া করোনার ধরনটির মতো। যদিও এই ধরনে আক্রান্ত কারওরই দক্ষিণ আফ্রিকায় যাওয়ার ইতিহাস নেই। তবে ব্রাজিলের পি১ ধরনটি পরিবর্তিত হয়ে এমন রূপ ধারণ করতে পারে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার এক দিনে ব্রাজিলে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে ৩ হাজার ৮৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯০ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। দেশটি এখন করোনা পরিস্থিতির অত্যন্ত মারাত্মক অবস্থায় রয়েছে। ব্রাজিলে এরই মধ্যে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে তিন লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, ব্রাজিলে সামাজিক দূরত্ব রক্ষাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে অবহেলা রয়েছে। সেই সঙ্গে দেশটিতে গণহারে টিকাদান কর্মসূচিও জোরেশোরে চলছে না। এগুলোকে অনেকেই করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে মনে করছেন।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন