বিজ্ঞাপন

নাইজেরিয়ায় এমন ঘটনা এর আগেও ঘটেছে। এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে ১ হাজারের বেশি মানুষকে অপহরণ করা হয়েছিল। দস্যুরা সাধারণত মুক্তিপণের বিনিময় অপহৃতদের ছেড়ে দেয়। গত ডিসেম্বরেও এমন ঘটনা ঘটেছিল। ওই সময়ও এমন ঘটনা ঘটেছিল যে যাদের পরিবার মুক্তিপণ দিতে পারেনি, তাদের মেরে ফেলা হয়েছে।

তবে এবার নাইজেরিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দস্যুরা এবার অপহৃতদের ছেড়ে দিয়েছে কোনো শর্ত ছাড়াই। এর জন্য কোনো অর্থ দিতে হয়নি। কিন্তু দস্যুদের সঙ্গে সমঝোতায় জড়িত একটি সূত্র বলেছে, ওই অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে কোনো আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে না, এই নিশ্চয়তা দেওয়ার পর অপহৃতদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

নাইজেরিয়ার জামফারা, কাতসিনা ও কাদুনা প্রদেশে এসব দস্যুদের অবস্থান। এই প্রদেশগুলোয় বিস্তৃত রুগু বনাঞ্চলে তাদের শিবির রয়েছে। এই দস্যুদের নির্মূলে এর আগে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। দেশটির বিমানবাহিনী তাদের শিবিরগুলো লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে। পাল্টা হামলা হিসেবে বিমানবাহিনীর উড়োজাহাজও ভূপাতিত করেছে দস্যুরা। এসব এলাকায় সামরিক উপস্থিতি বাড়ানো হয়েছে, তাদের সঙ্গে শান্তি আলোচনাও হয়েছে, কিন্তু কোনো কিছুতে কোনো সমাধান হয়নি। ফলে এখনো সেখানে সংঘর্ষ চলছে। এর আগে সোমবার দস্যুদের গুলিতে ১৩ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন