default-image

নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীরা একটি স্কুলে হানা দিয়ে ৪২ জনকে অপহরণ করেছে। তাদের মধ্যে ২৭ জন শিক্ষার্থী, ৩ জন শিক্ষক ও ১২ জন শিক্ষক পরিবারের সদস্য। অপহরণকারীদের গুলিতে নিহত হয়েছে এক শিক্ষার্থী।

দেশটির নাইজার রাজ্যের কাগারা শহরের সরকারি বিজ্ঞান কলেজে গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। আজ বুধবার স্থানীয় প্রশাসন অপহৃতদের এই সংখ্যা নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এর আগে বলা হয়েছিল, অপহরণের শিকার হয়েছিল কয়েক শ ছাত্র।

নাইজার রাজ্যের মুখপাত্র মোহাম্মদ সানি ইদ্রিস বলেন, ঘটনার সময় স্কুলটির হোস্টেলে ৬৫০ শিক্ষার্থী অবস্থান করছিল।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে বলা হয়, বন্দুকধারীরা সামরিক পোশাকে এসেছিল। তারা ওই শিক্ষার্থীদের তাড়িয়ে নিকটবর্তী একটি জঙ্গলের দিকে নিয়ে যায়। অপহরণের সময় স্কুলের এক কর্মচারী ও কয়েক শিক্ষার্থী কৌশলে বন্দুকধারীদের কবল থেকে মুক্তি পায়। ওই কর্মচারীই নিশ্চিত করেছেন, অপহরণের সময় বন্দুকধারীদের গুলিতে এক ছাত্র নিহত হয়েছে।

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড বেড়েই চলছে। এসব স্থানে প্রায়ই স্থানীয় দস্যুরা মুক্তিপণের জন্য অপহরণের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে।

তিবেদনে বলা হয়, নাইজেরিয়ার এসব স্থানের দস্যুরা অর্থ আদায়ের জন্য এমন ঘটনা ঘটিয়ে থাকে, আদর্শিক কারণে নয়। তবে দেশটির নিরাপত্তা বিভাগের কর্মকর্তারা শঙ্কা প্রকাশ করছেন, এসব অপরাধের সঙ্গে জঙ্গিদের প্ররোচনা থাকতে পারে। এক দশক ধরে নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে দেশটির সেনাদের সঙ্গে ইসলামপন্থী জঙ্গিদের লড়াই চলমান।

দুই মাস আগেও দেশটির উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ কাটসিনায় তিন শতাধিক স্কুলছাত্রকে অপহরণ করা হয়েছিল। পরে সরকার অপহরণকারীদের সঙ্গে সমঝোতায় গিয়ে তাদের মুক্ত করে আনে।

দেশটির নিরাপত্তা বিভাগ বলছে, অপহৃত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উদ্ধারে তাদের সেনারা কাজ করছে। এ জন্য আকাশব্যবস্থাসহ বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন