default-image

নাইজেরিয়া, অ্যাঙ্গোলা, কেনিয়া ও ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব দ্য কঙ্গোতে কোভ্যাক্স থেকে টিকা পৌঁছেছে।  এ বছরের প্রথম ১০০ দিনে বেশ কয়েকটি দেশে টিকা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কোভ্যাক্স। আর বছরের শেষে বিশ্বজুড়ে ২০০ কোটি ডোজ টিকা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে কোভ্যাক্সের। খবর এএফপির।

ধনী দেশগুলা টিকাদানে এগিয়ে আছে, কিন্তু অনেক গরিব দেশ এখনো টিকার অপেক্ষায় আছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলছে, প্রতিটি দেশ তাদের জনসংখ্যাকে টিকার আওতায় না আনা পর্যন্ত সংকটের অবসান হবে না।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দরিদ্র ও মধ্য আয়ের দেশগুলোকে বিনা মূল্যে টিকা সরবরাহ করতে ডব্লিউএইচওর নেতৃত্বে বৈশ্বিক উদ্যোগ হলো কোভ্যাক্স। এই উদ্যোগে প্রথম টিকা পেয়েছে আফ্রিকার দেশ ঘানা। কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে ১৯৮টি দেশ অংশ নিয়েছে। তবে সব দেশই প্রথম দফায় টিকা সরবরাহের আওতায় আসছে না।

গতকাল মঙ্গলবার আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল দেশ নাইজেরিয়া ৪০ লাখ, অ্যাঙ্গোলা ৬ লাখের বেশি ডোজ টিকা গ্রহণ করে। গত সপ্তাহে ঘানার সঙ্গে টিকা পায় আইভরি কোস্টও।

আজ বুধবার সকালে কোভ্যাক্স থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও অক্সফোর্ডের ১০ লাখের বেশি ডোজ টিকা পায় কেনিয়া। ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব দ্য কঙ্গোতেও পৌঁছেছে ১৭ লাখ ডোজ। এরপর তালিকায় আছে গাম্বিয়া। ৩০ হাজার ডোজ টিকা যাবে দেশটিতে।

নাইজেরিয়ার প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা সংস্থার পরিচালক ফয়সাল শোয়াইবের মতে, ত্রুটিযুক্ত অবকাঠামো এবং নিরাপত্তার ঘাটতি আফ্রিকাজুড়ে টিকাদান কর্মসূচির জন্য এখনো বড় বাধা হয়ে আছে। তিনি বলেন, ‘বিমানবন্দর না থাকায় সড়কপথে দেশগুলোর বিভিন্ন জায়গায় টিকা নিয়ে যেতে হবে। বিশেষ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিনযুক্ত গাড়িতে এসব টিকা পরিবহন করা হবে।’

স্থানীয় সময় গতকাল দুপুরের দিকে রাজধানী আবুজায় টিকার চালান পৌঁছায়। আগামী শুক্রবার থেকে দেশটির সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়ে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে বলে ফয়সাল শোয়াইব জানান।

অ্যাঙ্গোলায় বিমানবন্দর থেকে ছাড় পাওয়ার অল্প সময়ের মধ্যে কয়েকজন স্বাস্থ্যকর্মীকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন