default-image

ঘানার দুর্নীতি দমনবিরোধী বিশেষ আইনজীবী মার্টিন অ্যামিডু পদত্যাগ করেছেন। তাঁর নিয়োগ ও দুর্নীতি দমন প্রচেষ্টা নিয়ে আপস করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন তিনি। ২০১৮ সালে যখন প্রেসিডেন্ট আকুফো-আদ্দো তাঁকে নিয়োগ দেন, তখন দেশটিতে দুর্নীতিবিরোধী ব্যাপক প্রত্যাশা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু এর ফলাফল ছিল হতাশাব্যঞ্জক। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পদত্যাগ বিষয়ে এক বিবৃতিতে দেশটির সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যামিডু বলেন, তাঁর কাজের কোনো স্বাধীনতা নেই এবং স্বাধীনভাবে তাঁর আদেশ কার্যকর করতে পারেন না।

তিনি তাঁর কাজে প্রেসিডেন্ট আকুফো-আদ্দোর হস্তক্ষেপের অভিযোগ আনেন। অবশ্য প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ওই অভিযোগ নিয়ে কোনো সাড়া দেয়নি।

বিজ্ঞাপন

অ্যামিডু বলেন, তাঁর অফিসের কিছু কর্মীসহ তিনি নিজেও নিয়োগের পর থেকে কোনো বেতন পাননি।

এর আগে অ্যামিডু অভিযোগ করে বলেন, দুর্নীতিবিরোধী কাজে তিনি সরকারি সংস্থাগুলোর কাছ থেকে কোনো সহযোগিতা পাননি। এর বাইরে সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে তাঁর কর্মীদের সঙ্গে আপস করার চেষ্টা করা হয়।

তিনি যেসব বড় ধরনের মামলা নিয়ে কাজ করেছেন তার মধ্যে উড়োজাহাজ নির্মাতার সঙ্গে ৫০ লাখ ডলারের একটি কেলেঙ্কারির ঘটনা ও বিতর্কিত সোনার রয়্যালটি চুক্তিতে সরকারের জড়িত থাকার প্রচেষ্টার মামলাও রয়েছে।

দুর্নীতি দমনবিরোধী বিশেষ আইনজীবী মার্টিন অ্যামিডুর পদত্যাগের ঘটনায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন অনেক ঘানাবাসী।

মন্তব্য পড়ুন 0