বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাজাপ্রাপ্ত ওই ব্যক্তি মরক্কোর কাসাব্লাঙ্কা শহরের হাসান আই ইউনিভার্সিটির অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক। আদালত তাঁকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়ে বলেছেন, তিনি যে আচরণ করেছেন, তা অশোভনীয়, সহিংস ও যৌন হয়রানিমূলক। স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

এ ছাড়া আরও চার শিক্ষককে আজ আদালতে হাজির করা হবে। ব্যভিচারে উসকে দেওয়া, লিঙ্গবৈষম্য ও নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতার অভিযোগ আনা হয়েছে ওই তাঁদের বিরুদ্ধে। এর আগেও দেশটির গুরুত্বপূর্ণ এক বিশ্ববিদ্যালয়শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু এগুলো প্রমাণ করা সম্ভব হয়নি।

মরক্কোর অধিকারকর্মীরা বলছেন, দেশটিতে প্রচুর যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে আইনি ব্যবস্থা নিতে বাধা দেওয়া হয়। প্রতিশোধ বা পরিবারের ক্ষতি হতে পারে—এই ভয় থেকে এসব ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া হয়।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন