default-image

সন্ত্রাসবাদে রাষ্ট্রীয় মদদের কালো তালিকা থেকে সুদানের নাম আনুষ্ঠানিকভাবে বাদ দিল যুক্তরাষ্ট্র। বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

১৯৯৩ সালে সুদানকে কালো তালিকাভুক্ত করে যুক্তরাষ্ট্র। এখন চুক্তির আওতায় এই কালো তালিকা থেকে সুদানের নাম বাদ দিল যুক্তরাষ্ট্র।

চুক্তি অনুযায়ী, সন্ত্রাসী হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত মার্কিনদের ৩৩৫ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দিয়েছে সুদান। একই সঙ্গে তারা ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও জানিয়েছেন, সন্ত্রাসবাদে রাষ্ট্রীয় মদদের কালো তালিকা থেকে সুদানের নাম বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত গতকাল সোমবার থেকে কার্যকর হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কালো তালিকা থেকে নাম বাদ পড়ায় সুদানের আন্তর্জাতিক অর্থসাহায্য পাওয়ার পথ সুগম হলো।

আল–কায়েদাসহ জঙ্গিদের রাষ্ট্রীয় আশ্রয়-প্রশ্রয়ের অভিযোগে ১৯৯৩ সালে সুদানকে কালো তালিকাভুক্ত করে যুক্তরাষ্ট্র।

১৯৯৮ সালে কেনিয়া ও তানজানিয়ায় মার্কিন দূতাবাসে বোমা হামলা চালায় আল-কায়েদা। এ হামলায় ২২০ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়। এ ঘটনায় সুদান ক্ষতিপূরণ দিল।

কালো তালিকাভুক্ত হওয়ায় সুদান ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই তালিকা থেকে বের হওয়ার জন্য সুদান অনেক বছর ধরে চেষ্টা করছিল।

অবশেষে দেশটি বিপুল ক্ষতিপূরণ ও ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হওয়ার বিনিময়ে কালো তালিকা থেকে রেহাই পেল।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন