বিজ্ঞাপন

মালাবিতে টিকা নেওয়ার হার কম। এই ঘটনার পর টিকার প্রতি মানুষের আস্থা বাড়বে বলে আশা করছেন দেশটির স্বাস্থ্যকর্মীরা।

১ কোটি ৮০ লাখ জনসংখ্যার মালাবিতে এখন পর্যন্ত ৩৪ হাজার ২৩২ জনের করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এতে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৫৩ জনের। গত ২৬ মার্চ আফ্রিকান ইউনিয়ন থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১ লাখ ২ হাজার ডোজ টিকা পায় মালাবি। তার প্রায় ৮০ শতাংশ টিকা দেওয়া হয়ে গেছে। এসব টিকার মেয়াদ ছিল ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত।

মালাবির স্বাস্থ্যসচিব ডা. চার্লস এমওয়ানসাম্বো বিবিসিকে বলেন, এটা দুর্ভাগ্যজনক যে টিকাগুলো ধ্বংস করতে হলো। তবে এতে ঝুঁকি এড়ানো গেছে। তিনি বলেন, মেয়াদোত্তীর্ণ টিকা থাকার খবর প্রকাশের পরই তাঁরা লোকজনকে টিকা নিতে আসতে বারণ করে দেন।

চার্লস এমওয়ানসাম্বো বলেন, ‘আমরা যদি সেগুলো পুড়িয়ে না ফেলতাম, মানুষ ভাবতেন আমরা মেয়াদোত্তীর্ণ টিকা ব্যবহার করছি।’

বুধবার টিকাগুলো পোড়ানোর সময় কাছেই দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী খুমবিজে চিপোন্দাকে দেখা যায়।

তবে এরপরও মালাবিতে টিকা নিয়ে মানুষের মধ্যে সংশয় কাজ করছে। মালাবির রাজধানী লিলংবির রাস্তায় এমন কিছু মানুষের দেখা পেয়েছে বিবিসি।
তাঁদের মধ্যে পেশায় দোকানদার এক ব্যক্তি বলেন, ‘আমি টিকা নিতে চাই, কিন্তু আমি কীভাবে নিশ্চিত হব যে হাসপাতালে গেলে আমাকে মেয়াদোত্তীর্ণ টিকা দেওয়া হবে না?’

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন