বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, এখনো তদন্ত চলছে। তবে এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে একে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ বলে মনে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর ছয় সদস্য ও তিন সাধারণ নাগরিক নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১১ জন।

মোগাদিসুর আরেক পুলিশ কর্মকর্তা দাদির হাসান জানান, হামলায় ১১ জন মারা গেছেন। তিনি ফোনে সংবাদ সংস্থা আনাদোলুকে বলেন, আত্মঘাতী হামলাকারী মোগাদিসুর একটি প্রধান সামরিক ঘাঁটির কাছে ব্যস্ত চায়ের দোকানকে লক্ষ্য করেছিল।

আল-কায়েদার সঙ্গে সম্পৃক্ত আল-শাবাব সশস্ত্র গোষ্ঠী এই হামলা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সশস্ত্র গোষ্ঠীটি সোমালিয়ার ফেডারেল সরকারকে উৎখাতের জন্য লড়াই করে আসছে।

হামলার প্রত্যক্ষদর্শী কুদো ইউসুফ বলেন, ‘বিস্ফোরণের কয়েক মিনিট পর আমি ওই এলাকার পাশ দিয়ে যাচ্ছিলাম। পুরো এলাকায় ভুক্তভোগীদের জুতা ছড়িয়ে–ছিটিয়ে পড়ে ছিল।’

সোমালিয়ার প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ হোসেইন রোবল এ ধরনের ‘নির্বিচার’ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন